নোয়াখালীতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের অফিস কক্ষে গুলি!

Noakhalii-daily-jagoran
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নোয়াখালী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় কর্তব্যরত সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহমুদা খাতুনের অফিস কক্ষের জানালার কাঁচ ভেঙে হঠাৎ একটি বুলেট ঢুকে যায়। তখন কর্তব্যরত ম্যাজিষ্ট্রেট মাহমুদা খাতুন আতঙ্কে কক্ষ ছেড়ে বেরিয়ে আসেন।

বৃহস্পতিবার (১ জুন) দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে জেলা প্রশাসকের ভবনে এ গুলির ঘটনা ঘটে। এ সময় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক মাহবুবুল আলম তালুকদার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান কর্মরত অবস্থায় নিজেদের কক্ষ থেকে ম্যাজিষ্ট্রেট মাহমুদা খাতুনের কক্ষে ছুটে আসেন এবং মেঝেতে একটি গুলির খোসা দেখতে পান।

খবর পেয়ে পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার একে এম জহিরুল ইসলাম পাশের ভবন থেকে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। পরে সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন, জেলা ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমানসহ পুলিশ ও অন্যান্য দপ্তরের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন।

জেলা প্রশাসক জানান, অতি নিকটবর্তী পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ফায়ারিং বাড (চানমারি) থেকে এ গুলি আসতে পারে। তবে বিষয়টি পুলিশ কর্তৃপক্ষ খতিয়ে দেখবে।

পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ জানান, পুলিশের প্রশিক্ষণ চলাকালীন সময় ফায়ারিং বাড থেকে অসাবধানতার কারণে গুলিটি এসেছে। ওই সময় লক্ষ্মীপুর জেলার পুলিশ ফায়ারিং প্রশিক্ষণ নিচ্ছিল। এ ধরণের ঘটনা যেন না ঘটে সে লক্ষ্যে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা না হওয়া পর্যন্ত ফায়ারিং বাড বন্ধ থাকবে। আজকের ঘটনায় কারো কোন গাফলতি থাকলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ডিআইজি মাহবুবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং এটির যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

ad