পিরোজপুরে স্কুলছাত্র হত্যার দায়ে দুই ভাইয়ের মৃত্যুদণ্ড

Court
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পিরোজপুর টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র সাদমান সাকিব প্রিন্স হত্যা মামলায় দুই ভাইকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (৭ মে) বেলা দেড়টায় পিরোজপুরের জেলা ও দায়রা জজ মো. গোলাম কিবরিয়া এ আদেশ দেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলো- পিরোজপুর শহরের আদর্শ পাড়ার শফিকুল আলম হাওলাদারের ছেলে নাফিস হাসান নাহিদ (২৩) এবং তার বড় ভাই নাঈম।

হত্যার আলামত নষ্ট করার দায়ে উভয়কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এই মামলা থেকে খালাস দেওয়া হয়েছে নাহিদ এবং নাঈমের পিতা শফিকুল আলমকে।

আদালত সূত্রে জানাগেছে, ২০১৩ সালের ২৯ আগষ্ট সকালে নিঁখোজ হয় শহরের আদর্শ পাড়ার জাকির হোসেন সরদার লিটন এর ছেলে প্রিন্স। পরে ১ সেপ্টেম্বর স্থানীয় একটি পুকুর থেকে প্রিন্সের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় প্রিন্সের বাবা বাদী হয়ে সন্দেহভাজন ৮ জন সহপাঠীকে আসামী করে পিরোজপুর সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে পিরোজপুর সদর থানার উপ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান মুনির এই মামলায় শফিকুল আলম হাওলাদার এবং তার দুই ছেলে নাহিদ এবং নাঈমকে অভিযুক্ত করে ২০১৪ সালের ২৭ জুলাই আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

আদালত ১৪ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে মামলার প্রধান আসামী নাহিদের উপস্থিতিতে আজ এ রায় ঘোষণা করে। মামলার শুরু থেকে পলাতক রয়েছে নাহিদের ভাই নাঈম।

ad