বাড্ডা থানার ওসি জলিলসহ ৮ জনের নামে চাঁদাবাজির মামলা

badda thana
ad

জাগরণ ডেস্ক: বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমএ জলিল, এক এসআই এবং দুই এএসআইসহ আটজনের নামে চাঁদাবাজি এবং ভাঙচুরের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার (৭ জুন) ঢাকার একটি আদালতে উত্তর বাড্ডা পূর্বাচল সড়কের ২৪ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা নুরুননাহার নাছিমা বেগম এই মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামীরা হচ্ছে- বাড্ডা থানার ওসি এমএ জলিল, এসআই শহীদ, এএসআই দ্বিন ইসলাম ও মো. আব্দুর রহিম, জাহানারা রশিদ রূপা, রোকেয়া রশিদ, আতাউর রহমান কায়সার এবং মো. শুকুর আলী। এছাড়া অজ্ঞাতনামা তিনজন কনস্টেবলসহ সিভিল পোশাকের আরও ৫/৭ জনকে মামলার আসামী করা হয়েছে।

রবিবার (১১ জুন) ঢাকা মহানগর হাকিম মো. মাযহারুল ইসলাম বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। পরে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করার দায়িত্ব দেন আদালত।

মামলার নথি থেকে জানাগেছে , গত ১০ মে ওসির আদেশে আসামিরা বাদীর বাসায় এসে তার ছেলেকে আসামী জাহানারা রশিদের বাসায় বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে বলে। বিদ্যুৎ সংযোগ না দেওয়ায় আসামীরা তার ছেলেকে হাতুড়ি দিয়ে মারধর করে, বাসায় ভাঙচুর করে ২০ হাজার টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার এবং জমির কাগজপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। এ সময় আসামীরা বাদীর ছেলেকে হত্যার হুমকিও দেয়।

মামলার নথিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, গত ২৬ মে আসামী এমএ জলিলের আদেশে অন্য আসামীরা বাদীর বাসার ভাড়াটিয়াকে বের করে ফ্লাটে তালা দিয়ে চাবি নিয়ে নেয়। পরে চাবি ফেরত চাইলে বাড্ডা থানার এএসআই আব্দুর রহিম দুই লাখ টাকা দাবি করে সরাসরি থানায় যোগাযোগ করতে বলেন। না দিলে বিপদে পড়ার হুমকিও দেন তিনি।

ad