দুই আস্তানায় ১৫ থেকে ২০ জঙ্গি রয়েছে

moluvibazar operation
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের বড়হাট ও নাসিরপুর (ফতেহপুর) এলাকার দুইটি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান পরিচালনা করছে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) সদস্যরা। বাড়ি দু’টিতে নারী ও পুরুষসহ ১৫ থেকে ২০ জন জঙ্গি থাকতে পারে বলে ধারনা করছে তারা।

বুধবার (২৯ মার্চ) দুপুর আড়াইটার দিকে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) ডিসি মহিবুল ইসলাম খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আমরা পুলিশের সহায়তায় রাত থেকে বাড়ি দুটি ঘেরাও করে রেখেছি। জঙ্গিরা আমাদের ওপর গ্রেনেড ছুড়েছে, আমরাও গুলি চালিয়েছি। সোয়াত (কাউন্টার টেরোরিজমের বিশেষ ইউনিট) আসলে অভিযান চালানো হবে। ঢাকা থেকে সোয়াত টিম রওনা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি। ঘটনাস্থলে বিপুল পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

উল্লেখ্য, জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে মৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাট এলাকায় একটি বাড়ি এবং খলিলপুর ইউনিয়নের সরকার বাজার এলাকার নাসিরপুর (ফতেহপুর) গ্রামে আরো একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ ও সিটিটিসি। দুটি আস্তানাতেই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র-বিস্ফোরক আছে বলে ধারণা করা করছে সংস্থাগুলো।

মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন জানান, জঙ্গিদের প্রতিহত করতে এরই মধ্যে সব প্রয়োজনীয় কৌশল নেওয়া হয়েছে। ওই এলাকায় সাংবাদিকসহ সাধারণ মানুষকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

সিটিটিসির এডিসি মো. সাইফুল ইসলাম  জানান, নাসিরপুর গ্রামের জঙ্গি আস্তানা থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে তিনটি গ্রেনেড ছোড়া হয়েছে। এই জঙ্গিরা নব্য জেএমবি’র সঙ্গে যুক্ত বলেও ধারণা করা হচ্ছে। শান্ত শহর মৌলভীবাজার এখন আতংকিত। ঘটনাস্থল থেকে লোকজন সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা চলছে। বিভাগীয় কমিশনারসহ বিশেষ বাহিনীর লোকজন মিটিং করেছেন। এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে

ad