যুদ্ধাপরাধ: ফুলবাড়িয়ার আলবদর প্রধান রিয়াজের মৃত্যুদণ্ড

crimes against humanity, Riazuddin Fakir, Judgment, tomorrow
ad

জাগরণ ডেস্ক: মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার আলবদর বাহিনীর প্রধান রিয়াজ উদ্দিন ফকিরকে মৃত্যদণ্ড দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

বৃহস্পতিবার (১০ মে) বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ মামলার রায় ঘোষণা করে।

রায়ে বলা হয়, প্রসিকিউশনের আনা চার অভিযোগের সবগুলোই প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে দুটি অভিযোগে আসামী ফকিরকে মৃত্যুদণ্ড এবং দুটি অভিযোগে তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আসামীপক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মুজাহিদুল ইসলাম শাহীন। প্রসিকিউশনের পক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর ঋষিকেষ সাহা।

একাত্তরে যুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, আটক, অপহরণ, নির্যাতন ও ধর্ষণের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের পাঁচটি ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ছিল রিয়াজউদ্দিন ফকিরের বিরুদ্ধে। আসামী রিয়াজ উদ্দিন ফকির গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে রয়েছে।

এ মামলায় প্রাথমিকভাবে তিনজনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হলেও অভিযোগ গঠনের আগে গ্রেপ্তার হওয়া আসামী আমজাদ আলী কারাগারে অসুস্থ হয়ে মারা গেলে তার নাম বাদ দেয়া হয়। আরেক আসামী ওয়াজ উদ্দিন মারা যায় পলাতক অবস্থায়। অভিযোগ গঠনের পর তার মৃত্যুর বিষয়টি জানানো হলে ট্রাইব্যুনাল তার নামও বাদ দেয়।

২০১৬ সালের ১১ ডিসেম্বর অভিযোগ গঠনের মধ্যদিয়ে এ মামলার বিচার শুরু করে ট্রাইব্যুনাল। আসামীদের বিরুদ্ধে মোট পাঁচটি অভিযোগ আনা হয়।

তদন্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ২২ আগস্ট থেকে ২১ নভেম্বরের মধ্যে ফুলবাড়িয়া উপজেলার বেবিট্যাক্সি স্ট্যান্ড, রাঙ্গামাটিয়া ঈদগাহ সংলগ্ন বানা নদী, দিব্যানন্দ ফাজিল মাদ্রাসা, ফুলবাড়িয়া ঋষিপাড়া, আছিম বাজার ও ভালুকজান গ্রামে আসামিরা মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটায়।

ad