রাঙামাটিতে ৩ শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা

3 hundred, against, the case,
ad

জাগরণ ডেস্ক: রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় যুবলীগের এক নেতার মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাহাড়ীদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় তিন শতাধিক ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে সাতজনকে।

শনিবার (৩ জুন) সকালে রাঙামাটির পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ইতিমধ্যে তিনটিলা গ্রাম প্রায় জনশূন্য হয়ে পড়েছে। পাহাড়ীরা অনেকেই রাতে জঙ্গলে আশ্রয় নিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১ জুন) দুপুরে খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা সড়কে চার কিলো এলাকা থেকে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নুরুল ইসলামের লাশ উদ্ধার করা হয়। তার বাড়ি লংগদু উপজেলা সদরে। তিনি ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালাতেন। শুক্রবার (২ জুন) সকাল ৮টায় তার লাশ লংগদু বাত্যপাড়া গ্রামে নিয়ে আসা হয়।

হত্যাকাণ্ডের পর স্থানীয় বাঙ্গালীরা উপজেলা পরিষদের মাঠে সমাবেশ করে। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম বলেন, দু’জন পাহাড়ী নুরুল ইসলামের মোটরসাইকেল ভাড়া করে। এরপর থেকে তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি অভিযোগ করেন, পাহাড়ীরা নুরুল ইসলামকে হত্যা করেছেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা শাখার জনসংহতি সমিতির সভাপতি মনি শংকর চাকমা বলেন, পাহাড়ীদের দায়ী করে শুক্রবার সকালে বাঙালীরা তিন টিলা ও মানিকজোর ছড়া গ্রামে পাহাড়িদের দুই শতাধিক বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে। জনসংহতি সমিতির কার্যালয়ও পুড়িয়ে দিয়েছেন। আমার ঘরও পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

ad