রাতে তুলে নিল পুলিশ, সকালে মিললো গুলিবিদ্ধ লাশ

Nurul alam nuru
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের রাউজানে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা নুরুল আলম নুরুর (৪৫) গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া গেছে বলে দাবি মহানগর বিএনপি নেতাদের।

তাদের অভিযোগ, গতকাল বুধবার (২৯ মার্চ) রাতে তাকে নগরীর চকবাজারের কাতালগঞ্জের বাসা থেকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) সকালে তার গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যায়।

তবে নুরুকে তুলে নেয়ার কথা অস্বীকার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, স্থানীয় লোকজন সকালে নুরুর লাশের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তুলে দেন। স্থানীয় বিএনপি ও ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নেতা-কর্মীরা এতে লাইক শেয়ার ও কমেন্টসে এ মরদেহ ছাত্রদল নেতা নুরুর বলে দাবি করে তীব্র নিন্দা জানান।

বিএনপির অভিযোগ, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা পুলিশের একটি টিম নুরুকে বুধবার রাতে তুলে নিয়ে যাবার পর মাথায় সরাসরি গুলি করে হত্যাকান্ড ঘটায়।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, রাউজানে এ ধরণের কোন মরদেহ উদ্ধার কিংবা পড়ে থাকার খবর আমরা পাইনি। থানা থেকে ওসি কিংবা পুলিশ কেউ জানায়নি।

রাউজান উপজেলার নোয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মবিনুলও এ ধরণের মৃত্যু বা লাশ পড়ে থাকার কথা জানেন না বলে জানান।

স্থানীয় কয়েকজন লোক জানান, সকাল ঘুম থেকে উঠে চলাফেরা করার সময় উপজেলার বাগোয়ান ইউনিয়নের খেলার ঘাট এলাকায় কর্ণফুলী নদীর পাড়ে উপুর হয়ে পড়ে থাকা মরদেহ দেখতে পান। এ সময় ছবি তুলে তা ফেসবুকে দেন কয়েকজন। সেখানে লাশটি ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা নুরুল আলম নুরুর বলে চিহ্নিত করেন দলের নেতা-কর্মীরা।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আনছুর আলী জানান, মরদেহটি নুরুল আলম নুরুর। তিনি উত্তর জেলা ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক। বর্তমানে তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন।

চট্টগ্রামের রাজনীতিতে নুরুল আলম নুরু বিএনপির কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও রাউজানের সাবেক সাংসদ গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত।

এ ব্যাপারে গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী বলেন, গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে জেলা পুলিশের একটা সশস্ত্র টিম চকবাজারের কাতালগঞ্জের বাসা থেকে নুরুকে তুলে নিয়ে যায়। টিমের কয়েকজন জেলা পুলিশের ইউনিফর্ম পড়া ছিল। কয়েকজন সিভিল পোশাকে ছিল। রাউজান থানার নোয়াপাড়া ফাঁড়ির এস আই জাবেদ টিমের নেতৃত্ব দেন।

এরপর আজ বৃহস্পতিবার তার লাশ পাওয়া গেছে বাগোয়ান ইউনিয়নের খেলার ঘাট এলাকায় কর্ণফুলী নদীর পাড়ে। আমরা নিশ্চিত হয়েছি এটাই নুরুর লাশ। তার মাথায় সরাসরি গুলি করা হয়েছে।

ad