স্বামীকে মুক্ত করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার স্ত্রী!

gazipur
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় স্বামীকে আটকে মুক্তিপণের টাকার জন্য স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ চার যুবককে গ্রেপ্তার করেছে।

শুক্রবার (৯ জুন) রাতে এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার (১০ জুন) সকালে ধর্ষণের শিকার নারীর স্বামী বাদী হয়ে ওই চারজনসহ নয়জনের বিরুদ্ধে কালিয়াকৈর থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে- রবিন (২৬), রিপন (৩০), রাজিব (৩০) ও ডালিম (৩৪)। তাদের সকলের বাড়ি একই উপজেলার হরিণহাটি এলাকায়।

কালিয়াকৈর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান, শুক্রবার রাত ৮টার দিকে বাড়িতে রঙ করার কথা বলে স্থানীয় এক রঙ মিস্ত্রিকে দীঘির পাড় এলাকায় রবিনদের বাড়িতে ডেকে নেয় আসামীরা। পরে তাকে সেখানে আটকে রেখে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে তার স্ত্রীকে ফোন করে রবিন ও রিপন। রাত ৯টার দিকে টাকা ছাড়া স্বামীকে ছাড়িয়ে নিতে রবিনদের বাসায় যায় ওই রঙ মিস্ত্রির স্ত্রী।

তিনি জানান, গরীব মানুষ হওয়াতে আসামীদের হাতে পায়ে ধরে স্বামীকে ছেড়ে দিতে অনেক অনুরোধ করেন ওই নারী। কিন্তু তাতেও তারা রাজি না হয়ে রঙ মিস্ত্রিকে বেঁধে রেখে তার স্ত্রীকে অন্য ঘরে নিয়ে গণধর্ষণ করে। পরে সেখান থেকে চোখ-মুখ বেঁধে স্বামী-স্ত্রীকে তাদের অন্য সহযোগীরা দুইটি আলাদা স্থানে আটকে রাখে।

ঘটনাটি টের পেয়ে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে রাত ১১টার দিকে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে চার যুবককে আটকের চেষ্টা করে। এ খবর পেয়ে আটক স্বামী-স্ত্রীকে আসামীরা ভোরে হারিণহাটি এলাকার একটি রাস্তার ধারে ছেড়ে দিলে তারা বাড়ি চলে যায়। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের কাছে প্রকৃত ঘটনা শুনে এবং হরিণহাটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই চারজনকে আটক করে।

ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দুপুরে ধর্ষণের শিকার নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ad