বঙ্গোপসাগরে নৌকাডুবিতে নিহত ১, নিখোঁজ ১৮

boat
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ঝড়ো হাওয়া ও প্রবল বৃষ্টির কবলে পড়ে বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূলে নৌকাডুবিতে আব্দুস শুক্কুর (৪০) নামে এক জেলের মৃত্যু হয়েছে।

রবিবার (১০ জুন) ভোররাতে এ ঘটনা ঘটে।

বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে, এখনো ১৮ জেলেসহ ১৬টি মাছধরার বোট নিখোঁজ রয়েছে। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ১৩ জেলেকে।

নিহত শুক্কুর কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌফদন্ডী ইউনিয়নের অছিউর রহমানের ছেলে।

জেলা বোট মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহামদ জানান, নিখোঁজ বোটের মধ্যে কক্সবাজার সদরের চৌফলদন্ডীর বাবুল কোম্পানির একটি, ফখরুদ্দিনের একটি, কক্সবাজার শহরের পেশকার পাড়া ফজল কোম্পানি, আমিনুল ইসলাম মুকুল ও শওকত ইসলামের তিনটি। বাকি ১১টি বোটের পরিচয় এখনো পাওয়া পায়নি।

বোট মালিক আমিনুল ইসলাম মুকুল জানান, তার বোট এফবি সেন্টমাটিনে ১৭ জন জেলে ছিল। তার মধ্যে ১২ জন ফিরে এলেও বোটসহ পাঁচজন নিখোঁজ রয়েছে।

কক্সবাজার হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ আপন হোসেন মানিক জানান, রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মুমূর্ষ অবস্থায় আনা এক জেলেকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বাকী ১৩জনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বোট মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহামদ আরো জানান, ভোরের দিকে বৃষ্টির সাথে আকস্মিক ঝড়ো হাওয়া শুরু হলে বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূলের হিমছড়ি, কলাতলী, মহেশখালীতে ১৬টি বোট ডুবে যায়। এসব বোটের অধিকাংশ জেলে সাঁতরে কূলে ফিরে আসতে সক্ষম হলেও এখনো ১৮ জন জেলে নিখোঁজ রয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত সাগরে শতাধিক বোট অবস্থান করছে। এসব বোটের জেলেদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছে। তাদেরকে কূলে ফিরে আসতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কোস্টগার্ড কক্সবাজার স্টেশনের কন্টিজেন্ট কমান্ডার আকিরুল হাসান বলেন, মহেশখালী চ্যানেলের পশ্চিমে কবুতর চর নামক স্থানে দু’টি বোট ভেঙে যাওয়ার খবর আমরা পেয়েছি। সেখানে চারজন জেলেকে উদ্ধার করেছে অন্যবোটের লোকজন। তাদেরকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ভর্তি করা হয়েছে।

ad