আমতলীতে চাঁদা দিতে বিলম্ব হওয়ার অন্তঃসত্ত্বাকে মারধর

borguna map
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলীতে চাঁদার টাকা দিতে বিলম্ব হওয়ায় অটো চালক শহীদুল হাওলাদার ও তার অন্তঃসত্ত্বা মেয়ে সুমনাসহ পরিবারের সদস্যদের পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে শ্রমিক ইউনিয়নের চাঁদা আদায়কারী কামাল হোসেন ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত সুমনাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

রবিবার (৬ মে) দুপুরে আমতলী পৌর শহরের বাঁধঘাট চৌরাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, আমতলী পৌর শহরের বাসুগী গ্রামের শহীদুল হাওলাদার তার ৯ মাসের অন্তঃস্বত্তা মেয়ে সুমনা বেগমকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক দেখিয়ে নিজের ইজিবাইক নিয়ে বাসায় ফিরছিলেন। অটোটি বাঁধঘাট চৌরাস্তায় পৌছলে চাঁদা আদায়কারী কামাল হোসেনসহ ৩/৪ জন তার পথরোধ করে বরগুনা জেলা যান্ত্রিকযান থ্রি হুইলার শ্রমিক ইউনিয়নের চাঁদার টাকা দাবি করে।

এ টাকা দিতে বিলম্ব হওয়ায় চাঁদা আদায়কারীরা তাকে মারধর শুরু করে। এ সময় তাকে রক্ষায় ইজিবাইকে থাকা তার ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মেয়ে সুমনা বেগম, স্ত্রী নুপুর বেগম, শাশুড়ী সেলিনা বেগম, ভাবী খাদিজা বেগম ও ছোট কন্যা মীম এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। এতে সুমনা গুরুতর আহত হলে তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, গত বুধবার একইভাবে ইজিবাইক চালক বিপুল চন্দ্র দাসকে একে স্কুল চৌরাস্তায় ও ট্রাক চালক আবদুস ছালামকে ফেরীঘাটে চাঁদা আদায়কারী রাকিবসহ ৩/৪ জনে মারধর করেছে। উল্লেখ্য, যান্ত্রিকযান থ্রি হুইলার শ্রমিক ইউনিয়নের চাঁদা বাবদ গাড়ি প্রতি ২০ টাকা আদায় করা হয়।

ইজিবাইক চালক শহীদুল হাওলদার জানান, বাঁধঘাট চৌরাস্তায় কামাল হোসেনসহ ৩/৪ জন শ্রমিক ইউনিয়নের চাঁদার টাকা দাবি করে আমার কাছে। এ টাকা দিতে বিলম্ব হওয়ায় আমাকেসহ আমার মেয়ে সুমনা, স্ত্রী নুপুর, শাশুড়ি, ভাবী বেগম ও ছোট মেয়েকে মারধর করা হয়। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

ইজিবাইক চালক বিপুল চন্দ্র দাস জানান, গত বুধবার একে স্কুল চৌরাস্তায় চাঁদার টাকা দিতে বিলম্ব হওয়ায় চাঁদা আদায়কারী রাকিবসহ ৩/৪ জনে আমাকে মারধর করেছে।

যান্ত্রিকযান থ্রি হুইলার শ্রমিক ইউনিয়নের বাঁধঘাট চৌরাস্তায় চাঁদা আদায়কারী কামাল হোসেন বলেন, চাঁদা না দেয়ার ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেছে।  মারধর করা হয়নি।

বরগুনা জেলা যান্ত্রিকযান থ্রি হুইলার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধা বলেন, ইজিবাইক চালক ও তার পরিবারের সদস্যদের মারধরের ঘটনায় বিচার করা হবে।

আমতলী থানার ওসি সহিদ উল্যাহ বলেন, অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ad