ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ২ জনকে কুপিয়ে জখম

Stab, old woman ,leg, isolated,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের ফুলপুরে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ইভটিজিং করার ঘটনায় প্রতিবাদ করায় সোহেল মিয়া (৩০) নামের এক বখাটে দুজনকে কুপিয়ে জখম করেছে।

শনিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে এ ঘটনায় ওই মেয়ের পিতা বাদী হয়ে ফুলপুর থানায় একটি মামলা করেন। এর আগে শুক্রবার (২৭ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে উপজেলার আমুয়াকান্দা বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হচ্ছেন- ইভটিজিংয়ের শিকার মেয়ের ফুফাতো ভাই সুমন মিয়া ও চাচা রফিকুল ইসলাম। বর্তমানে তারা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় মেয়ের বাবা আবু তাহের বাদী হয়ে ফুলপুর থানায় শনিবার দুপুরে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে আসা যাওয়ার পথে প্রায়ই উত্যক্ত করতো বখাটে সোহেল। এক পর্যায়ে ওই মেয়ের বাবাকে বখাটে সোহেল বিয়ের প্রস্তাবও দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় এবং এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তিদের বিষয়টি জানায় ওই মেয়ের বাবা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সোহেল বিভিন্ন সময় হুমকি দিতে থাকে।

এরই জের ধরে গত শুক্রবার রাতে আমুয়াকান্দা বাজারের কাছে ওই মেয়ের ফুফাতো ভাই সুমনের পথ রোধ করে শরীরের বিভিন্নস্থানে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় চাচা রফিকুল ইসলাম বাধা দিতে এলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে বখাটে সোহেল।

ওই মেয়ের পিতা জানান, আমার ভাই ও ভাতিজাকে কোপানো পরও সে হুমকি দিয়ে বলেছে- মামলা করলে খুন করে ফেলবো। এছাড়া, বিভিন্ন সময় সে হত্যা করারও হুমকি দেয়। সোহেল বিবাহিত এবং তার বাচ্চা থাকা সত্ত্বেও আমার মেয়েকে উত্যক্ত করতো। এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন তিনি।

ফুলপুর থানার ওসি একেএম মাহবুবুল আলম জানান, বখাটে সোহেল পলাতক আছে। তবে খুব দ্রুতই তাকে গ্রেপ্তার করা হবে।

ad