ইসলামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এখন নিজেই অসুস্থ!

Islampur, Health Complex, Sick
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: অপ্রতুল জনবল, ওষুধের সংকট, বিকল যন্ত্রপাতি, চিকিৎসক সংকটসহ নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত হয়ে নিজেই অসুস্থ হয়ে পড়ে আছে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। ফলে যমুনা-ব্রহ্মপুত্র বিধৌত এ উপজেলার প্রায় চার লাখ লোকের স্বাস্থ্য সেবাদানকারী এ প্রতিষ্ঠানটির রীতিমত মুখ থুবড়ে পড়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ৫০ শয্যার এ হাসপাতালটির বহির্বিভাগে গড়ে প্রতিদিন ৩৫০-৪০০ রোগী চিকিৎসা সেবা নেন। রোগী ভর্তি থাকেন গড়ে প্রতিদিন ২০-৩০ জন। কিন্তু এত রোগীকে সেবা দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক নেই। ৫০ শয্যার জনবল কাঠামো অনুযায়ী ৩৩ জন চিকিৎসক থাকার কথা। কিন্তু কর্মরত আছেন মাত্র ১২ জন।

এরমধ্যে জুনিয়র কনসালটেন্ট (অ্যানেসথেসিয়া), জুনিয়র কনসালট্যান্ট (মেডিসিন), জুনিয়র কনসালট্যান্ট (সার্জারি), ডেন্টাল সার্জনসহ ২১ জন চিকিৎসক নেই। হাসপাতালটিতে ১৬ জন নার্স থাকার কথা থাকলেও আছেন মাত্র ৮ জন। এক্স-রে মেশিন অনেক পুরোনো হওয়ার কারণে মাঝেমধ্যে বিকল হয়ে পড়ে। আলট্রাসনোগ্রাফি মেশিন বন্ধ রয়েছে পাঁচ মাস ধরে। দেড় বছর ধরে বন্ধ রয়েছে অস্ত্রোপচার কক্ষও।

বুধবার (৩১ মে) সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, বহির্বিভাগে রোগীদের ভিড় জমেছে। সকাল ৯টায় বহির্বিভাগে দু’জন চিকিৎসক। গণমাধ্যমকর্মী হাসপাতালে আসার খবর পেয়ে ১০টার পর আরও কয়েকজন চিকিৎসক আসেন। হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড অপরিচ্ছন্ন।

বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে উপজেলার সাপধরী ইউনিয়নের জোরাডোবা গ্রামের মানিক জানান, আমরা নদীভাঙন এলাকার মানুষ। অনেক আগেই নদীতে ঘরবাড়িসহ সবকিছু নিয়ে গেছে। সকাল ৯টায় ডাক্তার দেখাতে বলেই আইছি। কিন্তু অনেক বেলা হইলেও এহনও ডাক্তার পাইলাম না।

হাসপাতালে সেবা নিতে আসা এক রোগীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দূর-দূরান্ত থেকে এসে সেবা না পেয়ে সমস্যায় পড়তে হয়। হাসপাতাল থেকে সরকারি ওষুধ রোগীদের ভাগ্যে জোটে না।

হাসপাতালের নানাবিধ সমস্যার কথা স্বীকার করে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এ কে এম শহীদুর রহমান জানান, চিকিৎসকদের এ হাসপাতালে ধরে রাখা যায় না। কিছুদিন থাকার পর তারা অন্যত্র বদলি হয়ে যান। ওষুধের সংকট, যন্ত্রপাতি নষ্ট ও অস্ত্রোপচার কক্ষসহ নানাবিধ সমস্যার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসীর দাবি, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যেন অতিদ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে যমুনা-ব্রহ্মপুত্র বিধৌত ইসলামপুর উপজেলার ৪লাখ লোকের স্বাস্থ্য সেবাদানকারী এ প্রতিষ্ঠানটি সেবামুখী করেন।

ad