উত্তপ্ত হয়ে উঠছে পলাশের রাজনৈতিক অঙ্গন

Heated, Palash, Political Areas,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদী পলাশ উপজেলার রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত হয়ে উঠছে । গত রবিবার উপজেলার কর্তেতৈল এলাকায় যুবলীগ ও জাসদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় একে অপরের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল) সকালে জাসদ নেতা জায়েদুল কবিরসহ সকল আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে পলাশ থানা ঘেরাও কর্মসূচি ঘোষণা করেছে উপজেলা যুবলীগ। ফলে উভয় পক্ষের নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে পলাশ উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঘোড়াশাল পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম নবাব বাদী হয়ে জাসদের জেলা সভাপতি জায়েদুল কবিরকে প্রধান আসামী করে জাসদের ১০ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, রবিবার বিকালে ঘোড়াশাল কর্তেতৈল এলাকায় জাসদের এক সভাস্থলে নরসিংদী জেলা জাসদ সভাপতি জায়েদুল কবির ও তার দলের লোকজন যাওয়ার পথে যুবলীগের কর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় জাসদ সভাপতি জায়েদুল কবির যুবলীগ নেতা-কর্মীদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এতে যুবলীগের ৭-৮ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।

পলাশ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মুজাহিদ হোসেন তুষার যুবলীগ নেতা-কর্মীদের উপর হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে জাসদ সভাপতি জায়েদুল কবীরসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান।

অপরদিকে, গত মঙ্গলবার রাতে জাসদের জেলা সভাপতি জায়েদুল কবির বাদী হয়ে ঘোড়াশাল পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ঘোড়াশাল পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন এবং পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম নবাবসহ যুবলীগের ১৪ নেতা-কর্মীর নামে পাল্টা একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, রবিবার বিকালে করতৈলে জাসদের দলীয় কর্মী সমাবেশে যোগদানের প্রাক্কালে জেলা জাসদের সভাপতি জায়েদুল কবির ও তার সফরসঙ্গী সাংবাদিক ও দলীয় নেতা-কর্মীদের ওপর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালায়। হামলায় জায়েদুল কবির, সাংবাদিক ও নেতা-কর্মীরা আহত হয়।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইদুর রহমান জানান, থানায় দুটি অভিযোগই আমলে নেয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ad