কাঠালিয়ায় অর্থ আত্মসাতের মামলায় প্রধান শিক্ষক জেলে

Kathalia, Headmaster, Jail,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় স্বাক্ষর জাল ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় চেচরী রামপুর এমএল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মেহেদী হাসানকে (৪০) জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন আদালত।

রবিবার (৬ মে) বিচারিক হাকিম আদালতের জামিনের আবেদন করলে দীর্ঘ শুনানি শেষে বিচারক সেলিম রেজা তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ২০ ফ্রেরুয়ারি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও চেচরী রামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন ফরাজী বাদী হয়ে আদালতে একটি নালিশি মামলা দায়ের করেন।

বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে কাঠালিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান মামলাটি তদন্ত শেষে গত ১৪ মার্চ প্রধান শিক্ষক মেহেদী হাসানকে অভিযুক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, প্রধান শিক্ষক মেহেদী হাসান ২০১৭ সালের ১৯ নভেম্বর এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফরম পূরণের নামে লক্ষাধিক টাকা গ্রহণ করেন। ২০১৭ সালের ২ জুলাই ও ৮ ডিসেম্বর বিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষর কাছ থেকে ভাউচারবিহীন ১ লাখ ৩৮ হাজার ৮ শত ৬৩ টাকা গ্রহণ করেন।

এছাড়া, জনৈক ননী গোপাল বড়ালের কাছ থেকে চাকরির নামে ছয় লাখ টাকা গ্রহণ করে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জাকির হোসেন ফরাজীর স্বাক্ষর জাল করে বিদ্যালয়ে শিক্ষক পদে তাকে চাকুরি দেন।

২০১৭ সালের মে মাসে বার্ষিক অডিটের নামে বিদ্যালয়ের ১৪ জন শিক্ষক-কর্মচারীর বেতনের ২ লাখ ৪২ হাজার ৭৩ টাকা আত্মসাত করেন। এছাড়া, একই বছর কয়েকটি বই প্রকাশনীর কাছ থেকে ১ লাখ টাকা নিয়ে তাদের অবৈধ গাইড বই ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির পাঠ্য ইতে অন্তর্ভুক্ত করেন।

ad