চেয়ারম্যানের কু-প্রস্তাবে মা রাজি না হওয়ায় ছেলেকে উলঙ্গ করে মারধরের অভিযোগ

Rajapur
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ঝালকাঠির রাজাপুরে মা কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছেলেকে প্রকাশ্যে উলঙ্গ করে পিটিয়ে ইয়াবা দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করার অভিযোগ উঠেছে সাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. সিদ্দিকুর রহমানের বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৭ মে) সকাল ১০টায় রাজাপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন নির্যাতনের শিকার রাহাত হাওলাদারের মা জাতীয় জয়ীতা পদকপ্রাপ্ত হেলেনা বেগম।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার (২৪ মে) সকালে বাড়ির পাশের  দোকানদারের কাছে পাওনা টাকা চাওয়ায় রাহাত ও দোকানির মধ্যে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতি হয়। এ ঘটনার পরেই আমাকে কয়েকমাস ধরে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসা সাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমানের কাছে নালিশ করে ওই দোকানী। এই সুযোগে চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর তার ক্যাডার বাহিনী নিয়ে আমার বাড়িতে হামলা করে রাহাতকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর রাহাতকে ওই এলাকার আমতলা বাজার, লেবুবুনিয়া বাজার ও নৈকাঠি বাজারে উলঙ্গ করে প্রকাশ্যে মারধর করা হয়।

এতে রাহাত অচেতন হয়ে পড়লে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে রাজাপুর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে চেয়ারম্যান। পরে পুলিশ বাদী হয়ে ওই দিনই মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠায়।

সংবাদ সম্মেলনে জয়ীতা হেলেনা বেগম তার ছেলের ওপর অমানুষিক নির্যাতনের প্রতিবাদ জানিয়ে এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচার দাবিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যপারে সাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ছেলেটি মাদকসেবী। তার মা হেলেনা বেগমও একজন খারাপ চরিত্রের মহিলা।

অপর এক প্রশ্নে জবাবে চেয়ারম্যান সিদ্দিক বলেন, আমি ছেলেটিকে মারিনি, এলাকাবাসী তাকে ইয়াবাসহ আটক করেছে। এরপর আমি পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

হেলেনা বেগমকে কুপ্রস্তাব দেয়ার বিয়ষটিও অস্বীকার করেন ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান।

ad