জামালপুরে ভুতুরে বিদ্যুৎ বিল, বিপাকে গ্রাহকরা

Miter
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: জামালপুরে পিডিবি কর্তৃপক্ষের ভুতুড়ে (ভুয়া) বিদ্যুৎ বিলে দিশেহারা হয়ে পড়েছে জেলার হাজার হাজার গ্রাহক। তাছাড়া গ্রাহকদের এখন বিল পরিশোধেও চাপ দিচ্ছেন তারা।

গ্রাহকদের অভিযোগ, সর্বনিম্ন এক হাজার থেকে শুরু করে প্রতি মিটারে বিদ্যুৎ বিল আসছে লাখ টাকার ওপরে। দিনের পর দিন স্থানীয় বিদ্যুৎ কর্যালয়ে অভিযোগ দিয়েও মিলছে না কোনো সমাধান।

তবে পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলীর দাবি, সমস্যা নিরসনে চেষ্টা চলছে।

গ্রাহক হাসিনা বেগম জানান, আমার দশ হাজার টাকা বিল এসেছে। এই বিলটা কীভাবে আসল, এই বিল তো আমার পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়।

আজিরন বেগম জানান, দুই হাজার টাকার বিল দেওয়ার পর, আবার দশ হাজার টাকার বিল এসেছে। এটা কীভাবে সম্ভব। পরে আমি মিটার চেক করে দেখি আমার বিল এতো হওয়ার কথা না।

গ্রাহকরা জানান, বিদ্যুৎ অফিসে যাওয়ার পর কর্তৃপক্ষ বারবার আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত এক বছর হয়ে গেছে, কোনো কাজই হয়নি।

ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিলের সমস্যা এখন জেলার হাজার হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহকের। সাশ্রয়ী বৈদ্যুতিক সামগ্রী ব্যবহার করলেও মাস শেষে বিদ্যুৎ বিল আসে কয়েকগুণ বেশি। বিদ্যুৎ বিলের এ পরিমাণ মাঝে মাঝে ছাড়িয়ে যায় লাখেরও বেশি। এতে রীতিমতো ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা। সমস্যা সমাধানে এসব গ্রাহকরা বারবার বিদ্যুৎ অফিসের দ্বারস্থ হলেও মিলছে না কাঙ্খিত সমাধান।

জামালপুর বিতরণ বিভাগ পিডিবি’র নির্বাহী প্রকৌশলী আশুতোষ বড়ুয়া জানান, কিছু গ্রাহক আমাদের কাছে এসে অভিযোগ করেছেন। তাদের অভিযোগগুলো দেখে সমাধানের চেষ্টা করবো।

মিটারের পদ্ধতি পরিবর্তনের কারণে এমন জটিলতার কথা স্বীকার করে অচিরেই এই সমস্যা সমাধানের চেষ্টার কথা জানান পিডিবির এই নির্বাহী প্রকৌশলী।

জেলায় বর্তমানে রয়েছে ৪৭ হাজার আবাসিক বিদ্যুৎ গ্রাহক। যার মধ্যে ২৩ হাজার গ্রাহক প্রিপেইড মিটার আর ২৪ হাজার গ্রাহক ব্যবহার করছেন ডিজিটাল মিটার।

ad