ঝালকাঠিতে দুই বিদ্যালয়ের কেউ পাশ করতে পারেনি

Jhalokathi
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: এসএসসি পরীক্ষায় ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার ইসলামপুর সেকেন্ডারি স্কুল এবং ভেরন বাড়িয়া সিএসইউ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে কোনো পরীক্ষার্থী পাস করতে পারেনি।

এদিকে, সোমবার (৭ মে) সকালে জেলা শহরের এক ছাত্রী ফেল করার কারণে স্যাভলন পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এখন সে শঙ্কামুক্ত।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, এসএসসি পরীক্ষায় নলছিটি উপজেলার ইসলামপুর সেকেন্ডারি স্কুলে ১৭ জন এবং ভেরন বাড়িয়া সিএসইউ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫ জনসহ মোট ২২ জন পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও দুটি বিদ্যালয়ের কোনো পরীক্ষার্থী পাস করেনি।

প্রসঙ্গত, গত বছরের তুলনায় এ বছর মাধ্যমিকে জেলায় পাশের হার কম। অনেক পরীক্ষার্থীর ফলাফলও ভালো হয়নি। জেলা শহরের দুটি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনেক শিক্ষার্থী ফেল করেছে।

এ বিষয় জানতে চাইলে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। এছাড়া নলছিটি উপজেলার শতভাগ ফেল করা বিদ্যালয় দুটির প্রধান শিক্ষকদের মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

তবে বরিশাল বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো. আনোয়ারুল আজিম বলেন, বরিশাল বিভাগের মধ্যে নলছিটি উপজেলার ২টি এবং পটুয়াখালী সদরের উত্তর মৌকরন এএইচ সেকেন্ডারি স্কুলের কেউ পাস করেনি। তবে সফলতাও রয়েছে। বোর্ডের আওতাধীন ৫০টি বিদ্যালয়ের শতভাগ পরীক্ষার্থী পাস করেছে। যার মধ্যে বরিশাল জেলায় সর্বোচ্চ ১৬টি, বরগুনায় ১১টি, ভোলায় ১০টি, পটুয়াখালীতে ৬টি, পিরোজপুরে ৪টি ও ঝালকাঠিতে ৩টি বিদ্যালয়ে রয়েছে।

ad