ঝিনাইদহে চাকরীর প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ, মুক্তিপণ দাবি

kidnu
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ঝিনাইদহ সরকারি কেসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অনার্সের ছাত্র সালমান হোসেনকে চাকরী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করা হয়েছে।

গত আড়াই মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছেন তিনি। তাকে ফেরৎ পেতে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হচ্ছে।

সালমান হোসেন ঝিনাইদহ শহরের হামদহ ঘোষপাড়ার অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কায়কোবাদের ছেলে।

গত ১৯ মার্চ তাকে চাকরী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিয়ে যায় মাগুরা জেলার ভোলানাথ গোবিন্দপুরের রুহুল আমিনের ছেলে সুজন (২৭) ও তার বোন রোজিনা খাতুন (৩৫)।

এ ঘটনায় সালমানের পিতা কায়কোবাদ ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি জিডি করেছেন।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, সুজন ও তার বোন রোজিনা সন্ত্রাসী ও প্রতারক। প্রতিবেশির আত্মীয় হওয়ার সুবাদে আমার ছেলে সালমান তাদের সাথে কথা বলতো। এক পর্যায়ে তাদের ফাঁদে পড়ে সালমান। সালমানকে চাকরীর টোপ দেয় সুজন ও তার বোন রোজিনা। এ জন্য ৩ লাখ টাকা দাবি করে। সালমান তাদের কথায় বিশ্বাস রেখে গত ১৯ মার্চ বাড়ি থেকে গরু বিক্রির এক লাখ ২০ হাজার টাকা ও ৩ ভরি গহনা নিয়ে গোপনে তাদের সাথে চলে যায়।

সালমানের বাবা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কায়কোবাদ জানান, সুজন ও তার বোন আমার ছেলেকে ফেরত না দিয়ে আটকে রেখে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করছে। থানায় জিডি করার পরও আমি প্রতিকার পাচ্ছি না বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ad