ডোমারকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি এমপি আফতাবের

Domar, the area affected, the claim, MP Aftab,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নীলফমারীর ডোমারে সাম্প্রতিক প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিষয়ে জেলা ও উপজেলার সাংবাদিকদের অবতিকরণ সভা ও সংবাদ সম্মেলন করেছেন নীলফামারী-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন সরকার। তিনি ডোমার উপজেলাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন।

শনিবার (১২ মে) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হলরুমে এই অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঝড়ের ক্ষতির পরিমাণ বলতে গিয়ে এক সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন এমপি আফতাব।

এ সময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বসুনিয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ উম্মে ফাতিমা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(তদন্ত) ইব্রাহিম খলিল, দশ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলার বিভিন্ন কার্যালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এমপি আফতাব উদ্দিন সরকার বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে বয়ে যাওয়া কাল বৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ডোমার উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যা স্মরণ কালের ভয়াবহ ঝড়। এই ঝড়ে ব্যাপকতা এতটাই ছিল, যা চোখে না দেখলে বিশ্বাস হবে না। চারিদিকে ছিল শুধুই কান্নার রোল।

তিনি বলেন, ঝড়ে ৪ জন নিহত ও ক্ষেতের ধান দেখে বাড়ি ফিরে আসার পথে একজন মারা গেছেন। ঝড়ের ফলে ৭ হাজার ৯৮৫ হেক্টর জমির ধান, প্রায় ১ হাজার হেক্টর জমির পাট, ২০০ হেক্টর জমির ভুট্টা এবং ৯৫ হেক্টর জমির চিনাবাদামসহ ১২ হাজার ৩৩০ হেক্টর জমির ফসল সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, স্কুল, কলেজ, মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ ঘড়-বাড়ির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ভেঙে পড়েছে হাজার হাজার ছোট-বড় গাছ। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বৈদ্যুতিক পিলার। ৯টি ইউনিয়নে ১৪ হাজার ৪০০ পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ ব্যাপক হওয়ায় তিনি এ এলাকাকে দুর্গত এলাকা হিসেবে ঘোষণার দাবি জানান।

তিনি আগামী ধান না উঠা পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত সকল পরিবারকে বিনামুল্যে চাল দেয়ার দাবি জানিয়েছেন ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের কাছে। তিনি ব্যাংক ও এনজিওদের দেয়া লোনের কিস্তি এবং বিদ্যুত বিল আগামী এক বছরের জন্য বন্ধ রাখা বা মওকুফ করার আবেদন জানান।

ঝড়ে পিডিবির ১৬ হাজার ও পল্লীর ৪০ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহকরা বর্তমানে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছেন বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

ad