ডোমারে বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে ১ শিশুর মৃত্যু

nilphamari
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডোমারে ছয়দিন আগে শিলাবৃষ্টি ও ঝড়ের কারণে ছিড়ে পড়া বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরও দুই শিশু।

বুধবার (১৬ মে) দুপুরে উপজেলার বামুনীয়া ইউনিয়নের কাচারী বাজারের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশুর নাম ছাব্বির। সে বামুনিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের কাচারী পাড়ার মো. আতাউর রহমানের ছেলে ।

উপজেলার বামুনিয়া ইউনিয়নের কাচারী পাড়ার রবিউল ইসলামের মেয়ে আহত সুমাইয়াকে (৭) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে এবং রবিউল আলমের মেয়ে অপর আহত শিশু রুবিনাকে ডোমার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহত রুবিনা জানায়, দুপুরের দিকে পুকুরপাড়ে খেলা করার সময় এক বন্ধু বিদ্যুতের ছিড়ে পড়া তারে আটকে যায়। তাকে উদ্ধার করতে গেলে আরেকজন আটকা পড়ে। ওদের উদ্ধার করতে গেলে রুবিনাও বিদ্যুতের তারে আটকে যায়।

আহত রুবিনার মা মুক্তা বেগম জানান, সাব্বির ও সুমাইয়া আটকে যাওয়ার পর ওদের ছাড়াতে গেলে ও (রুবিনা) আটকে যায়।

কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডা. খায়রুল ইসলাম জানান, মৃত অবস্থায় সাব্বিরকে আনা হয়। সুমাইয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে ।

ডেসকো ডোমার নিবার্হী অফিসারের কার্যালয়ের নিবার্হী ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলাম জানান, আমি রংপুরে। সেচ পাম্পের তারে জড়িয়ে একজন মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি।

লাইন মেরামত না করে কেন বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে- এই প্রশ্ন করলে তিনি জানান, বিস্তারিত এখনই বলতে পারছি না, পরে জানাবও।

উল্লেখ্য,গত বৃহস্পতিবার (১০ মে) রাত সাড়ে ৮টায় ডোমার উপজেলার ১০ ইউনিয়নের মধ্যে ৯টিতেই কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ফসল ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিসহ চারজনের মৃত্যু হয়।

বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এখন পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন মেরামত না হওয়ায় স্বাভাবিক হয়নি উপজেলার অনেক এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ।

ad