ডোমারে ভিজিএফের ২৪৬ বস্তা চাল আটক

jagoran- Domar 246 sacks, rice, detention,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডোমারে রাতের আঁধারে পাচারকালে পবিত্র ঈদ উপলক্ষে হত দরিদ্ররে মাঝে বিতরণের জন্য বরাদ্দকৃত ২৪৬ বস্তা চাল আটক করেছে এলাকাবাসী। চালগুলো প্রতি বস্তায় ৩০ কেজি করে ছিল, যার বাজারমূল্য ২ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। 

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার বোড়াগাড়ী বাজার এলাকায় একটি ট্রাক্টরের ট্রলিতে চাল পাচারকালে স্থানীয়রা তা আটক করেন। এ সময় ট্রাক্টরটি নিয়ে হেলপার ও চালক পালিয়ে যায়।

ভিজিএফের চাল পাচারের ঘটনাটি ছরিয়ে পরলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। চাল আটকের খবরটি ছড়িয়ে পড়লে রাতেই লোকজন চালগুলো দেখতে ভীড় করেন।

স্থানীয়রা জানান, ভিজিএফের চালগুলো পার্শ্ববর্তী জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল ইউনিয়ন থেকে পাচার করা হচ্ছিল। স্থানীয়রা চাল আটকের পরে পুলিশকে খবর দিলে ডোমার থানার এসআই গোলাম মোস্তফা এসে চাল জব্দ করে থানায় নিয়ে যায়। আরও ৩০০ বস্তা চাল সলেমানের চেীপথি দিয়েও পাচার করা হয়েছে।

চালগুলো ধর্মপাল ইউনিয়নের বলে অভিযোগ উঠলেও ধর্মপাল ইউপি চেয়ারম্যান চাল আটকের বিষয়টি শুনেছেন বললেও চালগুলো তাদের ইউনিয়নের কিনা তা বলতে পারেননি। এছাড়া, তিনি চাল পাচার করেননি বলেও জানিয়েছেন।

শুক্রবার (১০ আগস্ট) সকালে জলঢাকা উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল কালাম আজাদ, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এটিএম আখতারুজ্জামান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আসাদ মিয়াসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের ধর্মপাল ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে ঘটনা তদন্ত করতে দেখা যায়। এ সময় এলাকাবাসী চাল পাচারের সাথে জড়িতদের বিচারের দাবি জানান।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এটিএম আখতারুজ্জামান বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডোমার থানা অফিসার্স ইনচার্জ মো. মোকছেদ আলী বলেন, ঘটনাটি নিয়ে জলঢাকা প্রশাসন তদন্ত করছে। তদন্তের পরেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। চালগুলো বর্তমানে থানায় রয়েছে।

ad