নাটোরে ঘন্টার পর ঘন্টা লোডশেডিং, অস্বস্তিতে জনজীবন

loadshading
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: রমজান মাসেও নাটোরে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েচে। লোডশেডিংয়ের কারণে সবচেয়ে বেশী অস্বস্তিতে পড়ছেন রোজাদাররা।

জানাগেছে, জেলার বিভিন্ন স্থানেই রাতে ও দিনে গড়ে ৮-১০ ঘন্টা লোডশেডিং চলছে। ইফতার,তারাবি এমনকি সেহরির সময় পর্যন্ত থাকছে না বিদ্যুৎ। লোডশেডিং এর কারণে দেখা দিচ্ছে নানান সমস্যা। অসুস্থ হয়ে পড়ছেন বৃদ্ধ ও শিশুসহ সব বয়সী মানুষ। শুধু তাই নয় প্রচন্ড গরমে মানুষ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে পড়লেও লোডশেডিং এর কারণে বিঘ্নিত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা।

শুধু তাই নয়, ঈদ উল ফিতর ঘনিয়ে আসলেও গরম আর লোডশেডিংয়ের কারণে ঠিকমত কেনাকাটা পর্যন্ত করতে পারছে না ক্রেতারা। এতে করে এবার লোকসানের আশঙ্কা করছে ব্যবসায়ীরা।

সচেতন সমাজের ব্যাক্তিরা জানান, ভাবি সারাদিন রোজা রেখে ফ্যানের বাতাসে বসে ইফতার করবো কিন্তু সেই ভাগ্য আর হয় না। ইফতারি থেকে শুরু করে সেহরি ও নামাজের সময়ও কারেন্ট থাকে না। এতে ইবাদত বন্দেগি করতেও বাধা সৃষ্টি হচ্ছে।

বিভিন্ন স্থানের গার্মেন্ট দোকানদারেরা জানান, প্রচন্ড গরমে ও কারেন্ট না থাকায় ক্রেতাদের পোশাক বের করে দেখাতে অনেক অসুবিধা হচ্ছে।

সচেতন মহলের দাবি, বিদ্যুতের সমস্যা দ্রুত সাধান করে লোডশেডিংয়ের মাত্রা কমিয়ে জনগণের মাঝে স্বস্তি ফিরিয়ে দিতে সরকার যেন দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

ad