নেত্রকোনায় কালবৈশাখী ঝড়ে নিহত ১

Netrokona
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ১৫ মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে নেত্রকোনা জেলা। ঝড়ে প্রায় ৫ শতাধিক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেঙে পড়েছে শত শত গাছপালা।

এদিকে, ঝড়ের মধ্যে গাছ চাপা পড়ে শুক্রবার (১১ মে) সকাল ৭টার দিকে সদর উপজেলায় এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৩০ জন।

নিহত আব্দুল মালেকের (৫৫) বাড়ি সদর উপজেলার আমতলা গ্রামে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে নেত্রকোনা পৌর শহর, সদর, বাংলা মৌগাতি, চল্লিাশা, আমতলা ইউনিয়ন ও পূর্বধলা উপজেলা সদর, জারিয়া, ধলামূলগাঁও, বিশকাকুনি, আগিয়া, খলিশাউর ইউনিয়নের ৩০ গ্রামের ওপর দিয়ে শিলাবৃষ্টিসহ কালবৈশাখি ঝড় বয়ে যায়। এ সময় ঘরের নিচে চাপা পড়ে আব্দুল মালেক নিহত হন। আহত হয়েছে আরও অন্তত ৩০ জন। তাদের নেত্রকোনা সদর হাসপাতাল ও পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ঝড়ে সদর ও পূর্বধলা উপজেলার ৪০ গ্রামের প্রায় ৫ শতাধিক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাকা বোরো ফসল সম্পূর্ণ বিনষ্ট হয়ে গেছে। বিদ্যুৎ লাইনের খুঁটি ভেঙে জেলার ১০ উপজেলা বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে। হাজার হাজার গাছপালা উপড়ে পড়েছে। গাছ উপড়ে পড়ে শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ময়মনসিংহ-জারিয়া রেলপথে প্রায় ৩ ঘন্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল।

নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানান, ঝড়ে একজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ad