নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে কলেজ ছাত্রীকে গণধর্ষণ; আটক ২

Rape Case
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে।

সোমবার ভোরে এই ঘটনা ঘটে। সোমবার বিকালে ওই কলেজ ছাত্রী বাদি হয়ে দুই ধর্ষকের বিরুদ্ধে থানায় গণধর্ষণের মামলা দায়ের করে।

গ্রেফতারকৃত ধর্ষকরা হল, সিরাজপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ছোট রাজাপুর এলাকার জুবলিওয়ালা বাড়ির আব্দুল মুনাফের ছেলে মোঃ ইউছুপ (২৪) ও চরকাঁকড়া ১ নং ওয়ার্ডের ছুকানী বাড়ির মৃত আবুল হোসেনের ছেলে সেলিম (৩০)।

ওই কলেজ ছাত্রী জানান, ভোরে সে তার খালার বাসা ফেনী থেকে বাড়ি ফিরছিলো। বাস যোগে বসুরহাট জিরো পয়েন্টে আসার পর নিজ বাড়িতে যাওয়ার জন্য মোঃ ইউছুপের ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সায় ওঠে। এসময় রিক্সাচালক তাকে তার বাড়ির রাস্তায় না নিয়ে উল্টো চরকাঁকড়া ১ নং ওয়ার্ডে আবু নাছের শেখর এর আঁখ ক্ষেতের ভেতরে নিয়ে যায়। এ সময় ধর্ষক মোঃ ইউছুপ ও সেলিম কলেজ ছাত্রীকে জোরপূর্বক পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। পরে সেখানে তার মুখ চেপে ধরে হত্যার চেষ্টা করে। কলেজ ছাত্রী চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন বের হয়ে ধর্ষকদেরকে আটক করে। এরপর এলাকার লোকজন পুলিশকে সংবাদ দিলে পুলিশ এসে কলেজ ছাত্রীকে উদ্ধার করে এবং দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মোঃ ফজলে রাব্বী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কলেজ ছাত্রী বাদি হয়ে থানায় গণধর্ষণের মামলা করেছে। চিকিৎসার জন্য তাকে সোমবার বিকেলে নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ad