নড়াইলে শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়!

Narail-Photo
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: সার্কুলার ছাড়া এবং নিয়ম বহির্ভূতভাবে শিক্ষককে অন্যত্র বদলিসহ বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে নড়াইল সদর উপজেলার সদ্য বিদায়ী শিক্ষা কর্মকর্তা আবু হেনা মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে। আবু হেনা নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি হাফিজুর রহমানের নিকট আত্মীয় হওয়ায় প্রভাব খাটিয়ে এসব অনিয়ম-দুর্নীতি করেছেন বলে অভিযোগ সদর উপজেলা শিক্ষক সমিতির।

বৃহস্পতিবার (১০ মে) বিকালে নড়াইল প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমেেএসব অভিযোগ তুলে ধরা হয়।

লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শিক্ষক আমিনুর রহমান। এ সময় সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি অমিতোষ কুমার বিশ্বাসসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তবে অভিযোগ করা হয় জানান, শিক্ষা কর্মকর্তা আবু হেনা মোস্তফা কামাল প্রয়োজনীয় কক্ষ ও শিক্ষার্থী না থাকলেও তিনি নড়াইল শহর, শহর সংলগ্ন এবং যাতায়াত ব্যবস্থায় সুবিধা হওয়া কমপক্ষে ৮টি স্কুলে অতিরিক্ত শিক্ষক বদলি করেছেন। প্রাথমিক বিদ্যালয় ভিত্তিক উন্নয়ন পরিকল্পনার (স্লিপ) সরকারি অনুদান থেকে সদরের ১৭১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় প্রত্যেকটি স্কুল থেকে অর্থ আদায়, আন্তঃপ্রাথমিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিদ্যালয় প্রতি ১ হাজার ৮০০ টাকা বরাদ্দ থাকলেও ১ হাজার ৫০০ টাকা প্রদান করাসহ বিভিন্ন অনিয়ম করেছেন।

জানাগেছে, সদর উপজেলার পাচুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শামীমা নাসরিনকে নীতি বহির্ভূতভাবে সদরের বনগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বদলি করেছেন এই শিক্ষা কর্মকর্তা। গত মার্চ মাসের ২৯ তারিখে ২৩৫/২৭ নং স্মারকে শামীমাকে বদলির আদেশ দেওয়া হলেও ওই শিক্ষক ৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্কুলের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করেছেন এবং ৭ এপ্রিল বনগ্রাম স্কুলে যোগদান করেছেন।

এছাড়া, সদরের বনগ্রাম সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বিপ্রা দাস সম্প্রতি অন্যত্র বদলী হলেও ৩ এপ্রিল পর্যন্ত বনগ্রাম স্কুলের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করেন। তবে উপজেলা শিক্ষা অফিসার ২৭ মার্চ এই স্কুলের সহকারী শিক্ষক পদ শূন্য দেখিয়েছেন এবং ২৯ মার্চ সদরের পাচুড়িয়া স্কুলের সহকারী শিক্ষক শামীমা নাসরিনকে বনগ্রাম প্রাথমিক বিদ্যলয়ে বদলির অর্ডার দিয়েছেন। অন্যদিকে শামীমা তার পূর্বের স্কুল পাচুড়িয়া স্কুলের শিক্ষক হাজিরা খাতায় ৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্বাক্ষর করেছেন। এছাড়া এ দু’টি স্কুলে পদ শূন্য হবার পরও সার্কুলার দেওয়ার নিয়ম থাকলেও তার প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

এদিকে, আবুহেনা মোস্তফা কামালকে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদায়ী সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সদর উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষক নেতা সুনিল কুমার নাগ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মু. শাহ আলম।

ad