পার্বতীপুরে শিলাবৃষ্টিতে ঢেউটিনের বাজারে আগুন

ঢেউটিনের বাজারে আগুন
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: দিনাজপুরের পার্বতীপুরে আকস্মিক শিলাবৃষ্টিতে সবজি ক্ষেত, ভুট্টা ক্ষেত ও বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শিলার আঘাতে ঘরের টিনের চাল ছিদ্র হয়ে যাওয়ার দুর্ভোগে পড়েছেন হাজারো মানুষ। বৃষ্টির পর শহরের টিনের দোকানগুলোতে দেখা গেছে মানুষের উপচে পড়া ভীড়। এ সুযোগে ঢেউটিনের দাম বান্ডিল প্রতি ৫০০ থেকে ১ হাজার টাকা বাড়িয়ে দিয়েছেন বিক্রেতারা।

ঘরের চালের টিন নষ্ট হওয়ায় সেগুলো মেরামতে শহরের ঢেউটিনের দোকানে ভিড় করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। এ সুযোগে বিক্রেতারা টিনের দাম অনেক বাড়িয়ে দিয়েছেন।

চন্ডিপুর ইউপির চৈতাপাড়া থেকে বাজারে টিন কিনতে আসা মফিজুল ইসলাম জানান, তার তিনটি ঘরের টিন ছিদ্র হয়ে গেছে শিলার আঘাতে।

জেলা শহরের শহীদ মিনার সড়কের জনতা সু স্টোরের মালিক নুরুজ্জামান সরকার বলেন, এলাকার প্রায় প্রতিটি বাড়িরই টিনের চাল নষ্ট হয়ে গেছে। এ কারণে সবাই একযোগে টিন কিনতে এসেছেন। এ সুযোগে বিক্রেতারাও বেশি দাম হাঁকাচ্ছেন।

রমজান আলী নামে এক ক্রেতা বলেন, ঢেউটিন কিনতে এসে মাথা ঘুরছে। এতো বেশি দাম চাইলে টিন কিনব কিভাবে!

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ীরা বলেন, ঝড়ের পর টিনের জোগানের তুলনায় চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে। এ কারণে অনেক ব্যবসায়ীরা দাম কিছুটা বেশি নিচ্ছেন।

এদিকে, পার্বতীপুর প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, ১০টি, উপজেলার ১০ ইউনিয়নে ৬৩ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, গবাদিপশু শিলাবৃষ্টিতে ৮ হাজার ৪৯০ পরিবারের ঘরবাড়ির টিনের চাল শিলার আঘাতে নষ্ট হয়ে গেছে। শিলাবৃষ্টিত নিহত পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে।

পৌর এলাকার নয়াপাড়া এলাকার কৃষক আনিসুর রহমান জানান, তার আঠাশ ধানের আবাদের শীষ আসার সময় হয়েছে। কিন্তু শিলাবৃষ্টিতে ধানের থোর নষ্ট হয়ে গেছে।

উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক বলেন, আমার ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে আগাম বোরো ধান ও মৌসুমি সবজিসহ মানুষের ঘরের চালের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।

পার্বতীপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু ফাত্তাহ মো. রওশন কবির বলেন, শিলাবৃষ্টিতে ১০৭ হেক্টর ভুট্টা ও ২১ হেক্টর জমির শাকসবজি নষ্ট হয়ে গেছে। শিলাবৃষ্টি হলেও বোরো আবাদের তেমন ক্ষতি হবে না। শিলাবৃষ্টিতে বোরো ধান গাছের পাতার কিছুটা ক্ষতি হলেও ফসলে এর কোনো প্রভাব পড়বে না।

পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরফদার মাহমুদুর রহমান বলেন, শুক্রবার দুপুরে বয়ে যাওয়া ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত ঘর-বাড়ি এবং ইরি-বোরো ফসলের ক্ষতির তালিকা করা হচ্ছে।

ad