পায়রা নদীতে কুমির আতঙ্কে জেলেদের মাছ ধরা বন্ধ

payra river
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: বরগুনার তালতলী-আমতলী উপজেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত পায়রা নদীতে চারটি কুমির দেখতে পেয়েছে স্থানীয় জনগণ এবং জেলেরা। ভয়ে মানুষ নদীর তীরে যাচ্ছে না। জেলেরা মাছ ধরা বন্ধ করে দিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার (২৭ মে) গাবতলী গ্রামের জেলে আলমগীর শিকদার পায়রা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে দু’টি কুমির দেখে ভয়ে মাছ না ধরে নৌকা নিয়ে বাড়ি ফিরে আসে। তিনি বিষয়টি সকলকে জানালেও কোন মানুষ আমলে নেয়নি। ওইদিন দুপুরে নাসিমা ও রাব্বি নদীর পানি আনতে গিয়ে ৪টি কুমির ভাসা অবস্থায় দেখে পানি না নিয়ে ফিরে আসে।

মঙ্গলবার (৩০ মে) শেষ বিকালে মৌপাড়া ব্লকের দক্ষিনে পায়রা নদীতে হেলাল নামের এক যুবক চারটি কুমির দেখে চিৎকার শুরু করলে বগীর বাজারের শত শত মানুষ ছুটে এসে ঘটনা প্রত্যক্ষ করে।

ইউপি সদস্য মো. মজিবুর রহমান বিশ্বাস ও মৌপাড়া গ্রামের ইসহাক হাওলাদার বলেন, বঙ্গোপসাগরের মোহনা শাখা পায়রা নদীর জয়ালভাঙ্গা, চন্দনতলা, বগীর বাজার, মৌপাড়া, গাবতলী, ও চরপাড়ার ১০ কিলোমিটার পর্যন্ত নদীতে বুধবার (৩১ মে) সকাল থেকে কুমির আতঙ্কে জেলেরা মাছ ধরা বন্ধ করে দিয়েছে। মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

তালতলী উপজেলা সিনিয়ার মৎস্য কর্মকর্তা শামীম রেজা জানান, নদীতে কুমির এসেছে শুনেছি। এখনো দেখি নাই। জেলেদের বলা হয়েছে কুমির যেন না মারা হয়।

ad