পুলিশের ভয় দেখিয়ে পরীক্ষার খাতা কেড়ে নিল কমিটি!

Amtoli
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলীতে পরীক্ষার খাতা ও প্রশ্ন দিয়েও পুলিশের ভয় দেখিয়ে শফিকুল ইসলাম নামের এক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে খাতা ও প্রশ্ন কেড়ে নিয়েছে পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির লোকজন। পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে না পারায় তার শিক্ষা জীবন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

মঙ্গলবার (২২ মে) সকালে আমতলী ডিগ্রী কলেজ কেন্দ্রের বকুলনেছা মহিলা কলেজ ভেন্যুতে এ ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, শফিকুল ইসলাম ২০১৫ সালে আমতলী ডিগ্রি কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস কোর্স পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। ওই বছর সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষায় তিনি অকৃতকার্য হন। এ বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ওই পরীক্ষার্থী মঙ্গলবার সোয়া ৯টায় আমতলী বকুলনেছা মহিলা কলেজ ভেন্যুতে আসেন।

ওই ভেন্যুর ১০৫নং কক্ষে পরীক্ষার্থী উপস্থিত হলে কক্ষ পরিদর্শকরা তাকে পরীক্ষার খাতা ও প্রশ্ন দেন। পরে তিনি খাতায় তার রোল ও রেজিষ্ট্রেশন নম্বর ভরাট করেন।

এমন মুহুর্তে পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সদস্য ও আমতলী সরকারি কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ের প্রভাষক মো. আবদুল কুদ্দুস পরীক্ষার্থীকে খাতা ও প্রশ্ন নিয়ে পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির কক্ষে ডেকে নেন। বিলম্বে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসার অভিযোগ তুলে তার খাতা ও প্রশ্ন কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করেন।

পরীক্ষার্থী শফিকুল বৃষ্টির কারণে আসতে বিলম্ব হয়েছে বলে অনুরোধ করলেও তারা অনুরোধ রাখেননি। পরে পরীক্ষার্থীর খাতা ও প্রশ্ন দিতে না চাইলে পুলিশের ভয় দেখিয়ে খাতা ও প্রশ্ন কেড়ে নেন এবং তাকে পরীক্ষার কেন্দ্রে থেকে বের করে দেন।

পরীক্ষার্থী সফিকুল ইসলাম বলেন, বৃষ্টির কারণে পরীক্ষা কেন্দ্রে যেতে ১৫ মিনিট বিলম্ব হয়। পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়ার পরে কক্ষ পরিদর্শকরা আমাকে খাতা ও প্রশ্ন দেয়। ওই খাতার আমি আমার রোল ও রেজিষ্ট্রেশন ভরাট করি।

তিনি বলেন, কিছুক্ষণ পরে কুদ্দুস স্যার আমাকে অফিস কক্ষে ডেকে নেয়। পরে পরীক্ষা কেন্দ্রে বিলম্ব আসার অভিযোগ তুলে খাতা ও প্রশ্ন নিতে চায়। বৃষ্টির কারণে আসতে বিলম্ব হয়েছে বলে আমি তাকে অনুরোধ করি। কিন্তু তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের ধরিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে খাতা ও প্রশ্ন কেড়ে নিয়ে আমাকে কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমি পরীক্ষা দিতে না পারায় আমার শিক্ষা জীবন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

আমতলী ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রের পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সদস্য মো. আবদুল কুদ্দুস বলেন, বিলম্ব করে পরীক্ষা দিতে আসায় পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো. গোলাম মোস্তফার পরামর্শে খাতা ফেরত নিয়েছি।

পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, পরীক্ষা শুরুর পৌনে ২ ঘন্টা পরে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আসায় তাকে খাতা দেয়া হয়নি।

আমতলী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) গাজী আবদুল মন্নান বলেন, শিক্ষকরা বিশেষ বিবেচনায় ওই পরীক্ষার্থীকে খাতা ও প্রশ্ন দিয়েছিল। কিন্তু পরীক্ষা দিতে বিলম্বে আসায় আমার (অধ্যক্ষ) নির্দেশে আবার খাতা ও প্রশ্ন ফেরত নেয়া হয়েছে।

ad