পূর্বধলায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

Netrokona map
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নেত্রকোনার পূর্বধলায় সুমাইয়া খানম মুন (২১) নামের এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার পর আটক করা হয়েছে নিহতের শাশুড়ি রিপা বেগমকে। তবে পলাতক রয়েছে শ্বশুর আবুল কালাম।

বৃহস্পতিবার (৩ মে) সকালে উপজেলার সাধুপাড়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার ডান কান ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মুন পূর্বধলা উপজেলার হোগলা ইউনিয়নের সাধুপাড়া গ্রামের রিয়াদ মিয়ার স্ত্রী।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানাগেছে, সাধুপাড়া গ্রামের আবুল কালামের ছেলে রিয়াদ মিয়ার সঙ্গে প্রায় তিন বছর আগে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার কাজীর শিমলা গ্রামের শাহীনুর আলম খানের মেয়ে সুমাইয়া খানম মুনের বিয়ে হয়।  তাদের দেড় মাস বয়সী একটি সন্তান রয়েছে।

মুনের বাবা শাহীনুর আলম খান জানান, তার মেয়ে ও জামাইয়ের মধ্যে খুব ভালো সম্পর্ক ছিল।  ঘটনার দিন তার জামাই বাড়িতে ছিল না।  মুনের শ্বশুড় আবুল কালাম দীর্ঘদিন ধরে নেশাগ্রস্ত। প্রতিবেশী এক নারীর সঙ্গে তার অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে। সে প্রায় সময়ই ওই নারীর সঙ্গে রাত্রি যাপন করতো। এতে বাধা দেওয়ায় সে প্রায় সময় পরিবারের সদস্যদের মারধর করতো।

শাহীনুর আলম খান বলেন, যেখান থেকে মুনের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে সেখানে ওঠা মুনের পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব না। তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতের শ্বাশুড়ী রিপা বেগমের দাবি, বুধবার রাতে খাবার শেষে তিনি ও মুন নিজ ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন।  রাতে তাকে ঘরে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করা হলে পাশের খড়ের ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। তখন মুন জীবিত আছে দেখে তারা ফাঁসি থেকে নামিয়ে আনার পরপরই সে মারা যায়।

পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিল্লাল উদ্দিন বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা মর্গে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুনের শাশুড়ি রিপা বিগমকে আটক করা হয়েছে। এখনো মামলা হয়নি।

ad