প্রেম করে পরিবারের অমতে বিয়ে, অতঃপর…

Shuvo-Munni
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: প্রেম করে পরিবারের অমতে সিয়াম ওরফে শুভকে বিয়ে করেছিলেন পারভীন মুন্নি। এরপর গাজীপুরে দু’জন মিলে পেতেছিলেন সুখের সংসারও। তবে সে সুখের সংসার তাদের টেকেনি। স্বামীর হাতেই খুন হতে হয়েছে মুন্নিকে। আর এতে সলিল সমাধি ঘটেছে একটি প্রেমের।

শুক্রবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কেওয়া পশ্চিমখন্ড এলাকায় স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায় স্বামী সিয়াম।

সিয়ামের গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরে। পারভীনের বাবার নাম মনির হোসেন। তিনি পরিবারসহ ঢাকার শাহীনবাগের একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। সেখানে তিনি একজন বাবুর্চির সহকারী হিসেবে কাজ করতেন।

স্থানীয়রা জানায়, কেওয়া পশ্চিমখন্ড গ্রামের প্রশিকা মোড় এলাকায় আব্দুর রাজ্জাক মিয়ার (রেজু মিয়া) বাড়িতে ওই দম্পতি ভাড়া থাকতো। মুন্নি পার্শ্ববর্তী মারিয়া ফ্যাশনের টাইম কিপার ও সিয়াম বাড়ির পার্শ্ববর্তী প্রিমিয়াফ্লেক্স প্লাস্টিক লিমিটেড কারখানায় অফিস সহায়ক পদে চাকরি করতো। ওই বাড়িতেই সিয়ামের শ্বশুর-শাশুড়িও ভাড়া থাকতেন।

বেলা ১১টায় মুন্নির মা ঘরের দরজা বন্ধ দেখে তাদের ডাকাডাকি শুরু করেন। এতে কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে দরজায় উঁকি দিলে তিনি দেখেন মুন্নির নিথর দেহ পড়ে আছে ও সিয়াম ঘরে নেই। এছাড়া ঘরের জানালা ভাঙা দেখা যায়। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের বড় ভাই রমজান আলী জানান, দু’জনের ভালোবাসার কথা জেনেই আমরা পারিবারিকভাবে বিয়ে মেনে নিয়ে তাদের বাড়িতে নিয়ে এসেছিলাম। এরপরই কয়েকবার তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়েছিল। আমরা তা পারিবারিকভাবে মিটিয়েও দিয়েছিলাম।

শ্রীপুর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুল হাসান জানান, ওই নারীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

ad