বাউফলে পরকীয়ায় আসক্ত ২ শিক্ষকের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ

Jagoran- Bauphal, 2 teachers, trial, claim,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফলে পরকীয়া প্রেমে আসক্ত দুই শিক্ষকের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসী।

বুধবার (১ আগষ্ট) বাউফল সদর ইউনিয়নের হোসনাবাদ বাজারে দুই শতাধিক এলাকাবাসী এই বিক্ষোভে যোগ দেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ৯৫নং দক্ষিণ হোসনাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আনিছুর রহমান ও লুবনা আক্তার দীর্ঘদিন থেকে পরকীয়া প্রেম করছেন। পরকীয়া প্রেমে বাধা দেয়ায় আনিছুর রহমান তার স্ত্রীকে দীর্ঘদিন থেকে শাররীক ও মানসিক নির্যাতন করছেন।

অপরদিকে, বিধবা লুবনা আক্তারের একটি সন্তান রয়েছে। স্কুল চলাকালীন তারা একে অপরের সঙ্গে আপত্তিকর আচরণ করায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরূপ প্রভাব পড়ছে। বিষয়টি অভিভাবকরা একাধিকবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটিকে অবহিত করলেও তারা কর্ণপাত করেননি।

এর জেরে আজ এলাকাবাসী হোসনাবাদ বাজারে এসে বিক্ষোভ শুরু করেন। এক পর্যায়ে তারা বিদ্যালয় ঘেরাও করে দুই শিক্ষকের বিচারের দাবি করেন। পরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা বিচারের আশ্বাস দিলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিদ্যালয় ত্যাগ করেন।

তবে সাংবাদিকদের কাছে শিক্ষক আনিছুর রহমান ও লুবনা আক্তার নিজেদেরকে স্বামী-স্ত্রী দাবি করে বলেন, কিছুদিন আগে আমরা বিয়ে করেছি। এখন আমরা স্বামী-স্ত্রী। তবে বিয়ের পক্ষে কোনো প্রমাণপত্র তারা দেখাতে পারেননি।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সুলতান আহমেদ তালুকদার বলেন, শিগগিরই ম্যানেজিং কমিটির সভা আহ্বান করে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এদিকে, ৬৩ নং নয়ারহাট বিডিসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক দীপা সিকদারকে সম্প্রতি তার পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করে এলাকাবাসী। পরে বগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদার তাদের মুচলেকা রেখে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রিয়াজুল হক বলেন, খুব শিগগিরই অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ad