বাউফলে পৃথক ঘটনায় নিহত ২, একজনের আত্মহত্যা

Bauphal Photo (2)
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফলে আম গাছ থেকে পড়ে হেলাল ফরাজী (২২) নামের এক যুবক ও পানিতে ডুবে তানভীর (৬) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া, গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক নরসুন্দর।

রবিবার (২৯ এপ্রিল) সকালে উপজেলার চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে গাছ থেকে পড়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে এবং কনকদিয়া ইউনিয়নের উত্তর কনকদিয়া গ্রামে পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের সাত্তার ফরাজীর ছেলে হেলাল সকালে বাড়ির পাশে আম পাড়ার জন্য গাছে উঠে। এ সময় আম গাছ থেকে পা পিছলে নীচে পড়ে যায় সে। দ্রুত তাকে উদ্ধারের পর বাউফল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে, কনকদিয়া গ্রামের কামাল হাওলাদারের ছেলে তানভীর বাড়ির পাশে পুকুর ঘাটে গোসল করতে যায়। এ সময় সে পানিতে পড়ে ডুবে যায় সে। পরে স্বজনরা অনেক খোঁজাখুঁজির পর তানভীরকে  উদ্ধার করে বাউফল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, বাউফল সদর ইউনিয়নের অলিপুরা গ্রামের মোহন শীলের ছেলে নরসুন্দর মনিন্দ্র শীল (৪০) আত্মহত্যা করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, শনিবার রাতে একই গ্রামের ভজ কেষ্ট মাঝির বাড়িতে আয়োজিত নাম কীর্ত্তন অনুষ্ঠানে যায় মনিন্দ্র শীলের স্ত্রী ও সন্তানেরা।  রাতে বাড়ি ফিরে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় মনিন্দ্রর লাশ দেখতে পান। পরে তার স্ত্রী লাশটি নামিয়ে প্রতিবেশীদের খবর দেন।

বাউফল থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, মনিন্দ্র শীল গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করছি। এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ad