বাউফলে বেড়িবাঁধ কেটে জমি ভরাট আ.লীগ নেতার

Bauphal, embankment cut, fill the land,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফলের মদনপুরা ইউনিয়নের দ্বিপাশা গ্রামে কৃষকের ফসল রক্ষার জন্য নির্মিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধ কেটে মাটি দিয়ে নিজের জমি ভরাট করছেন স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা। এ ব্যাপারে স্থানীয় কৃষকরা ওই নেতাকে জিজ্ঞাসা করলে ওপরের অনুমতি নিয়েই তিনি বেড়িবাঁধ কাটছেন বলে কৃষকদের জানিয়েছেন।

মদনপুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি লুৎফর রহমান ওরফে লাল খান গত সাতদিন ধরে দ্বিপাশা গ্রামের খান বাড়ি এলাকার বেড়িবাঁধের প্রায় ১৫০ ফুট জায়গার মাটি কেটে নিজের জমি ভরাট করছেন।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় কৃষকদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হলেও আওয়ামী লীগ নেতার ভয়ে প্রকাশ্যে কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছেন না। জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড এ বিষয়ে কিছুই জানে না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে জানা যায়, উপজেলার মদনপুরা ইউনিয়নের প্রান্তিক কৃষকদের উৎপাদিত ফসল রক্ষার জন্য জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড ১৯৯৯ সালে কনকদিয়া নদীর পূর্ব ও পশ্চিম পাড় ঘেঁষে দ্বিপাশা গ্রামের উচু পুল থেকে আমিরাবাদ গ্রাম পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার বেড়িবাঁধ নির্মাণ করে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন কৃষক অভিযোগ করেন, এভাবে মাটি কেটে নেয়া হলে কোনোভাবেই বর্ষা মৌসুমে বেড়িবাঁধ টিকবে না। অমাবশ্যা বা পূর্ণিমার সময় ভরা বর্ষাকালে নদীর পানি বেড়িবাঁধ ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে কৃষকের উৎপাদিত ফসল তলিয়ে যাবে। ক্ষতি হবে লাখ লাখ টাকার।

বিষয়টি সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিতে আনার জন্য কৃষকরা সাংবাদিকদের অনুরোধ করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফর রহমান ওরফে লাল খানকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, আমি বেড়িবাঁধ কাটিনি বরং বেড়িবাঁধ ঠিক করেছি।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হাসানুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। জানার পর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ad