বাউফলে মেয়েকে কুপিয়ে হত্যা, মাকে জখম

Bauphal
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফলে হ্যাপি বেগম (৩০) নামে এক নারীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় তার মাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে।

রবিবার (১৩ মে) বাউফলের বগা ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামে তাকে নির্মমভাবে কুপিয়ে খুন করা হয়।

নিহত হ্যাপি বেগম এক সপ্তাহ আগে শরিয়তপুরের স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়ি রাজনগর গ্রামে বেড়াতে আসেন। তার স্বামী ফয়সাল দুবাই প্রবাসী। তাদের রিয়া মনি (৮) নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে।

নিহতের চাচি তাছলিমা বেগম বলেন, রাজনগর গ্রামের মো. ইব্রাহিমের সঙ্গে আবদুর রহিম চৌকিদারের দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্তবিরোধ চলে আসছে। রবিবার দিবাগত রাত নয়টার দিকে আবদুর রহিমের ছেলে আবদুর রব টমটম নিয়ে বাড়িতে ঢোকার পথে ইব্রাহিমের ঘরের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ইব্রাহিমের স্ত্রী হোসনে আরা বেগমকে (৫৫) মারধর শুরু করে রব ও তার সহযোগীরা। এ সময় হোসনে আরার মেয়ে হ্যাপি বাধা দিলে তাকে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে জখম করা হয়।

পরে রক্তাক্ত অবস্থায় মা ও মেয়েকে বাউফল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা হ্যাপিকে মৃত ঘোষণা করেন। আর মা হোসনে আরাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ এ ঘটনায় আবদুর রব (২৫), আবুল কালাম (২৮) ও মালা বেগম (২৫) নামের তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক আবদুর রউফ সাংবাদিকদের বলেন, ‘হ্যাপি বেগমের পেটে টেটা মেরে ভুঁড়ি বের করে ফেলা হয়েছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। হোসনে আরা বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাই তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ ছিল। ইতিমধ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত প্রধান আসামীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ad