বীরগঞ্জে সেতুর দাবিতে মানববন্ধন

Birganj, bridge, demand, human chain,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: দিনাজপুরের বীরগঞ্জে আত্রাই নদীর ওপর বীরগঞ্জ-খানসামা উপজেলার ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাটে সেতুর দাবিতে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী।

শনিবার (১২ মে) সকাল ১০টায় উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের ঝাড়বাড়ী চৌরাস্তা মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাট সেতু বাস্তবায়ন কমিটি এ কর্মসূচির আয়োজন করে। কর্মসূচিতে সামাজিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠনসহ সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাট সেতু বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক শেখ মো. জাকির হোসেন বলেন, আত্রাই নদীতে সেতুর অভাবে যুগ যুগ ধরে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ-খানসামা উপজেলাসহ পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও-নীলফামারী জেলার কয়েক লক্ষাধিক মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকার এবং বাঁশের সাকোর মাধ্যমে নদী পারাপার হচ্ছেন।

তিনি বলেন, এই সেতুটি নির্মাণের দাবি দীর্ঘদিনের। দেশ স্বাধীনের পর থেকেই এ সেতুটি নির্মাণের জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অনেক আবেদন-নিবেদন করেও কোনো লাভ হয়নি। বিভিন্ন সময়ে রাজনীতিবিদদের কাছ থেকে আশ্বাস পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

তিনি আরও বলেন, এ পথে যাতায়াত করতে শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের জনগণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সেতুটি নির্মাণের দাবিতে আমরা দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসীকে নিয়ে আন্দোলন করে আসছি।

শেখ মো. জাকির হোসেন বলেন, সেতুটি নির্মাণ হলে এই অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি ও দুঃখ দুর্দশার যেমন অবসান হবে, তেমনি অর্থনীতিতে নতুন প্রাণের সঞ্চার হবে। তাই সেতুটি জরুরি ভিত্তিতে নির্মাণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

উল্লেখ্য, দিনাজপুরের বীরগঞ্জ-খানসামা উপজেলার ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাটে সেতু না থাকায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছে চার জেলার কয়েক লাখ মানুষ। আত্রাই নদীর এ অংশে একটি সেতু হলে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের পাঁচটি ইউনিয়নসহ ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড় জেলার সঙ্গে নীলফামারীর সরাসরি যোগাযোগ শুরু হবে।

বীরগঞ্জ উপজলোর ঝাড়বাড়ী চৌরাস্তা মোড় থেকে আত্রাই নদী পার হয়ে পূর্ব দক্ষিণে নীলফামারী ১৭ কিলোমিটার আর আত্রাই নদীর পশ্চিমে ঠাকুরগাঁও ২২ কিলোমিটার। অথচ ব্রিজটি না থাকার কারণে ১৮ কিলোমিটার পথ বেশি পাড়ি দিতে হয় নীলফামারী, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও এবং দিনাজপুর জেলার কয়েক লাখ মানুষকে।

ad