বড়াইগ্রামে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ

UNO, intervention, child marriage, closure,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নাটোরের বড়াইগ্রামে নবনিযুক্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আনোয়ার পারভেজের হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক কিশোরীর বিয়ে।

মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মো. আনোয়ার পারভেজ এই বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন।

ইউএনও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপস্থিত হন উপজেলার বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের মাহমুদপুর গ্রামের মৃত মাসুম মীরের বাড়িতে। সেখানে গিয়ে দেখতে পান বাড়ির লোকজন বিয়ে নিয়ে আনন্দে হৈচৈ ও ব্যস্ত রয়েছেন। অপরদিকে, চলছে মাংস-পোলাও রান্না।

এ সময় ইউএনওসহ পুলিশের উপস্থিতিতে থমকে যায় সকল হৈচৈ ও আনন্দ। পরে পরিবারের সদস্যদের সাথে বাল্য বিয়ের কুফল নিয়ে আলোচনার পর মেয়ের মা মোছা. নাছিমা বেগমের কাছ থেকে ১৮ বয়সের আগে বিয়ে না দেয়ার শর্তে মুচলেকা নিয়ে বিয়ে কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়।

ঘটনাস্থলে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মোমিন আলী ও ইউপি সদস্য মো. সাইফুল ইসলাম।

কিশোরী মৃত মাসুম মীরের মেয়ে ও বড়াইগ্রাম বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী মোছা. মাছুরা খাতুন (১৪) জানান, তার অমতেই তাকে বিয়ে দেয়া হচ্ছিল। তার ইচ্ছা তিনি উচ্চ শিক্ষিত হয়ে স্কুল শিক্ষিকার চাকরি করবেন, তারপর বিয়ে করার কথা ভাববেন।

ad