ভূঞাপুরে ২ ভুয়া ডাক্তারকে অর্থদণ্ড

mobile court.
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে দুই ভুয়া চিকিৎসককে ৬০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (১৫ মে) দুপুরে ভূঞাপুর চক্ষু হাসপাতালে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো- চক্ষু হাসপাতালের সিনিয়র ডাক্তার হিসেবে পরিচিত আইয়ুব খান এবং জুনিয়র ডাক্তার হিসেবে পরিচিত মঞ্জুরুল ইসলাম মাসুম।

স্থানীয়রা জানান, ডাক্তার পরিচয় দেয়া মাসুম চক্ষু হাসপাতালে ওয়ার্ড বয় ও আইয়ুব আলী হাসপাতালে আসা চিকিৎসকের সহকারী ছিল। মাসুমের মা ছিল অফিস সহকারী। এখন মাসুম অভিজ্ঞ ডাক্তার আর তার মা চক্ষু বিশেষজ্ঞের দায়িত্বে রয়েছে!

মাসুম উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাউবি) অধীনে এসএসসি পাস করে ঢাকার বেসরকারি একটি প্রাইভেট ভার্সিটি থেকে ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট নিয়ে চক্ষু হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

আইয়ুব খান এবং মঞ্জুরুল ইসলাম মাসুম দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতালে বসে রোগীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছে। এছাড়া রোগীদের বিভিন্ন টেষ্ট ও উচ্চ মাত্রার ওষুধ লিখে দিচ্ছেন চিকিৎসাপত্রে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শরীফ আহম্মদ বলেন, চিকিৎসা বিষয়ক সনদপত্র না থাকায় তাদেরকে প্রাথমিক পর্যায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে প্রত্যেককে ৩০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। তারা যাতে পরবর্তীতে কোনো রোগীদের চিকিৎসাপত্র বা এই সকল কাজে জড়িত না থাকে, তার নির্দেশ দেয়া হয়।

এদিকে, হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসা প্রদানের জন্য সনদধারী ডাক্তার এবং ক্রটিপূর্ণ ও পর্যাপ্ত যন্ত্রপাতি না থাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জরিমানা না করলেও তা দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছেন।

ad