ভোলায় ৯ ডাকাত আটক

Bhola Dakat
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ভোলার তজুমদ্দিনের মেঘনা নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে নয় ডাকাতকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা।

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) সন্ধ্যায় উপজেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চর নাছরিন সংলগ্ন নদী থেকে তাদের আটক করা হয়।

এ ঘটনায় ১১ জন আহত হয়েছেন। আহতদের রাত ৯টার দিকে তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

আটককৃত ডাকাতরা হলেন, রামগতি উপজেলার ইসমাইল ওরফে কালু (২৫), মাহফুজ (৪৫), ফরিদ (৪০), আশরাফ (৩৮) ও চরফ্যাশন উপজেলার নজির (৬৫)। বাকিদের পরিচয় জানা যায়নি।

তজুমদ্দিন থানা পুলিশ ও আহত মালেক জেলে জানান, তজুমদ্দিন উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের মহেষখালী নামক এলাকায় একটি ট্রলার ডাকাতদের কবলে পড়ে। এ সময় এক যাত্রী ফোন দিয়ে বিষয়টি মাছ ঘাটের লোকজনকে জানায়। খবর পেয়ে স্থানীয় জেলেরা একটি ট্রলার নিয়ে ডাকাতদলকে ধাওয়া করে। পরে জেলেদের আরও একটি ট্রলার এসে ডাকাদলের ট্রলারটি ধরতে সক্ষম হয়।

এ সময় ডাকাতরা এলোপাথারী গুলি ও কুপিয়ে তিন জেলেকে আহত করে। পরে ডাকাতরা লোকালয়ের গহীন জঙ্গলে ঢুকে পড়লে জেলেরা ৯ ডাকাতকে আটক করে গণধোলাই দেয়। বাকীরা গহীন জঙ্গলে পালিয়ে যায়।

তজুমদ্দিন থানা ওসি ফারুক হোসেন জানান, আটককৃত ৯ ডাকাত পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন আছে। তাদের নামে ডাকাতির প্রস্তুতির মামলা দায়ের করা হবে।

ad