মনোহরদীতে চোর সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

Narasinghdi map
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদীর মনোহরদীতে আব্দুর রহিম (৩০) নামের এক যুবককে চোর সন্দেহে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (৭ জুন) রাতে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

এর আগে গত রবিবার সকালে মনোহরদী থানার প্রধান ফটকের সামনে হাজী ভবনের তৃতীয় তলার ছাদের উপর এ নির্মম নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

নিহত রহিম নেত্রকোনা জেলার দূর্গাপুর উপজেলার গাঁওকান্দিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম নন্দিরচটি গ্রামের মৃত হেলাল উদ্দিনের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ব্যবসায়ীরা জানায়, গত ১ জুন দুপুরে হাজী ভবনের নিচতলা থেকে এক শিক্ষার্থীর সাইকেল চুরি হয়। দুইদিন পর চোর সন্দেহে আব্দুর রহিমকে কয়েকজন শিক্ষার্থী মিলে উঠিয়ে হাজী ভবনের তৃতীয় তলার ছাদের উপর নিয়ে যায়। সেখানে ভবনের পিলারের সাথে বেঁধে রহিমকে কম্পিউটার সেন্টারের মালিক মাহবুবুর রহমান লোহার রড দিয়ে বেদম মারপিট করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

সেখানে অবস্থার অবনতি হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে দুইদিন চিকিৎসাধীর পর তাকে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) একদিন থাকার পর বৃহস্পতিবার রাতে তার মৃত্যু হয়।

নিহতের খালাতো বোন সুফিয়া বেগম বলেন, মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমার ভাইকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রহিম ছিল পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তার মৃত্যুতে পুরো পরিবার আজ অনিশ্চিত ভবিষ্যতে পড়েছে।

মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফকরুদ্দীন ভূঞা বলেন, এই ব্যাপারে নিহতের পরিবার থেকে থানায় অভিযোগ করলে মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হবে।

ad