মাধবদীতে গণপিটুনিতে মোটরসাইকেল চোরের মৃত্যু

gonopituni.jpg 1
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদীতে রাতের আঁধারে গণপিটুনির শিকার হয়ে এক মোটরসাইকেল চোরের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে সোমবার (১২ মার্চ) দিবাগত রাত ৩টার দিকে নরসিংদী সদর উপজেলার মাধবদীর বিরামপুর মহল্লায় চুরি করতে এসে ওই চোর গণধোলাইয়ের শিকার হয়।

নিহতের নাম রাকিবুল (২৬)। সে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার রসুলপুর গ্রামের হাসমত আলীর ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, একটি সংঘবদ্ধ মোটরসাইকেল চোরের দল বিরামপুর মহল্লার আলমগীরের ঘরের বারান্দার গেটের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় চোর চক্রটি বারান্দায় রাখা মোটরসাইকেলের তালা ভাঙার চেষ্টা করতে থাকলে ঘরের লোকজন টের পেয়ে চোর বলে চিৎকার শুরু করে।

তাদের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী কারখানার শ্রমিকসহ এলাকাবাসী ছুটে এসে চোরদের ধাওয়া করে। এ সময় চোরদের একজন দেয়ালে ধাক্কা খেয়ে পড়ে গেলে উত্তেজিত জনতা তাকে ধরে গণপিটুনি দেয়।

খবর পেয়ে মাধবদী থানার পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নরসিংদী সদর হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

এলাকাবাসী জানায়, মাধবদীতে একের পর এক মোটরসাইকেল চুরির ঘটনার কোনো সুরাহা না পেয়ে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল এলাকাবাসী। গত কয়েক মাসে মাধবদী থেকে অন্তত ২০টি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে। ভুক্তভোগী আলমগীরের ছোটভাই ইউসুফেরও একটি মোটরসাইকেল কিছুদিন আগে চুরি হয়েছে।

মাধবদী থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম জানান, খবর পেয়ে ভোরেই পুলিশ গণপিটুনির শিকার ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মোটরসাইকেল চুরি রোধে তারা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও তিনি জানান।

ad