রামগঞ্জে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ মৌলভীর বিরুদ্ধে

লক্ষ্মীপুর
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে রাশেদ আলম নামে এক পাঞ্জেগানা ঈমামের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে ওই লম্পট মৌলভী রাশেদ পলাতক রয়েছে।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে বিচার চাইলে ঈমামের পক্ষের লোকজন ওই ছাত্রীর ভগ্নিপতিসহ আত্মীয় স্বজনের উপর হামলা করে এবং রাতে বসতঘরে অগ্নিসংযোগ করে।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার ৭নং দরবেশপুর ইউনিয়নের হামিদ আলী শেখের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও স্কুল ছাত্রীর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার জগতপুর গ্রামের সাহার বাড়ির মৌলভী রাশেদ বেশ কয়েক মাস আগে হামিদ আলী শেখের বাড়ির জামে মসজিদের পাঞ্জেগানা ঈমাম হিসেবে চাকরি নেয়। ওই এলাকার মৃত মন্নানের মেয়ে রাশেদ মৌলভীর কাছে আরবী পড়তো। বুধবার মক্তব ছুটি শেষে রাশেদ জোরপূর্বক ওই স্কুলছাত্রীকে তার রুমে নিয়ে শ্লীলতাহানি করে।

এ সময় স্কুলছাত্রী চিৎকার দিলে রাশেদ তাকে ছেড়ে দেয়। পরে সে বিষয়টি পরিবারের কাছে জানায়। এ ঘটনায় ছাত্রীর ভগ্নিপতি রনি বিষয়টি মসজিদের দায়িত্বে থাকা লোকজনকে জানালে হামিদ আলী শেখের বাড়ির আমির হোসেনের ছেলে আরিফ হোসেন তার ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে স্কুলছাত্রীর ভগ্নিপতি রনির উপর হামলা করে। এতে সে আহত হয়। এরই সূত্রধরে বুধবার রাতে ওই ছাত্রীর ঘরের জানালা ভেঙে মোশারীতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় ঘরে থাকা অন্য সদস্যরা টের পেয়ে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

ছাত্রীর মা খুকি বেগম জানান, আমার মেয়ে ছাড়াও পাশের ঘরের মনিরের মেয়ে মরিয়ম আক্তারকেও ওই লম্পট কয়েকবার শ্লীলতাহানি করেছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

মসজিদের সাবির্ক দায়িত্বে থাকা আবুল খায়ের চৌধুরী জানান, বিষয়টি গতকাল রাতে আমরা সমাধান করার চেষ্টা করেছি। আর এখানে তেমন কিছু হয়নি। এর চেয়ে আমি বেশি কিছু জানি না। মোয়াজ্জেনের বাড়ির নাম ঠিকানাও আমি জানি না।

রামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. তোতা মিয়া জানান, এ ব্যাপারে থানায় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। তবে সংবাদ পেয়ে থানার এসআই আবদুল মোমেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ভুক্তভুগীর অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ad