রায়পুরায় হাত-পা বাঁধা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

Raipur, housewife, dead body, recovered,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদীর রায়পুরা থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় সুমাইয়া আক্তার (২৫) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৫ মে) সকাল ৮টার দিকে উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নের খাকচক এলাকায় নিহতের বাবার বাড়ির কাছে স্থানীয় মনিরুজ্জামানের জমি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত সুমাইয়া খাকচক গ্রামের হানিফা মিয়ার মেয়ে। তার জাহিদ মিয়া নামের পাঁচ বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

নিহতের স্বজনরা জানান, প্রায় আট বছর পূর্বে নরসিংদীর বানিয়াছল এলাকায় ভাড়া থাকা রতন মিয়ার সাথে পারিবারিক সম্মতিক্রমে বিয়ে হয় সুমাইয়ার। এরই মাঝে সুমাইয়াসহ তার পরিবারের লোকজন জানতে পারেন, রতন এর আগেও একটি বিয়ে করেছিল।

বিষয়টি গোপন রেখে দ্বিতীয় বিয়ে করা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়। এক পর্যায়ে দুই বছর পূর্বে স্বামী রতন তার স্ত্রী সুমাইয়া ও সন্তান জাহিদকে ফেলে চলে যায়।

এরপর থেকে সুমাইয়া বাবার বাড়িতে থাকতেন। অভাবের সংসারে নিরুপায় হয়ে সুমাইয়া তার ছেলে জাহিদকে একটি এতিমখানায় দিয়ে দেন এবং তিনি নিজে একটি গার্মেন্টসে কাজ নেন।

আজ সকালে এলাকার লোকজন বাড়ি থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে বর্ষার পানি জমে থাকা মনিরুজ্জামানের জমিতে পেছন দিক থেকে হাত-পা বাধা কাঁদার নিচে মাথা চাপা দেয়া অবস্থায় তার লাশ দেখতে পাওয়া যায়।

নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, প্রতিবেশী প্রতিপক্ষদের সাথে হত্যাকাণ্ড সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জেরে সুমাইয়াকে হত্যা করা হয়েছে। প্রতিপক্ষের লোকজন রাতের আঁধারে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

রায়পুরা থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন বলেন, লাশটির সুরতহাল করার পর তা ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে না পেয়ে সঠিকভাবে কোনো কিছু বলা যাচ্ছে না। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

ad