শিবপুরে আর্জেন্টিনার সমর্থক স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম

Stab, old woman ,leg, isolated,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদীর শিবপুরের আর্জেন্টিনার সমর্থক রবিন মিয়া (১৬) নামের এক স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ ব্রাজিল সমর্থকরা। তবে এই ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। রবিনের মা এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

মঙ্গলবার (১৯ জুন) দুপুরে এই ঘটনায় রবিনের চাচা আল-আমিন বাদী হয়ে শিবপুর মড়েল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এর আগে সোমবার (১৮ জুন) রাত ৮টার দিকে উপজেলার দক্ষিণ কারারচর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

আহত রবিন মিয়া শিবপুর উপজেলার দক্ষিণ কারারচর এলাকার ইকবাল মিয়ার ছেলে এবং কারারচর মৌলভী তোফাজ্জল হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ছাত্র।

আহত রবিনের মা আফিয়া বেগম জানান, সোমবার বিকালে আমার ছেলে কারারচর মৌলভী তোফাজ্জল হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের সমানে একটি মাঠে ফুটবল খেলতে যায়। সেখানে আমার ছেলে আর্জেন্টিনার দলের হয়ে একটি গোল করে ব্রাজিল দলকে হারায়।

তিনি জানান, এ সময় ব্রাজিল দলের আব্দুলের সাথে এই গোল করা নিয়ে কাথা কাটাকাটি হয়। খেলা শেষে আমার ছেলে বাড়ি ফিরে এলে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আব্দুল ও মাসুম তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিযে যায়। পরে রবিনকে আমাদের বাড়ির পেছনে নিয়ে ১০-১৫ জন মিলে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে দুই হাতে, মাথায় ও গলায় কুপিয়ে ফেলে রেখে চলে যায়।

তিনি আরও জানান, সেখান থেকে আমার ছেলে কোনোরকমে প্রাণ নিয়ে বাড়িতে আসে। পরে তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে চিকিৎসা জন্য ভর্তি করানো হয়। তার অবস্থা বেশি ভালো নয়।

আহত রবিনের সাথে কথা বলতে গেলে তার গলায় কুপানোর আঘাত থাকার কারণে স্পষ্টভাবে কথা বলতে পারছিল না। অনেক কষ্টে সে আস্তে আস্তে জানায়, ফুটবল খেলায় আমি গোল করার পর আব্দুলের সাথে ঝগড়া হয়। এই কারণেই সেসহ আরো ১০-১৫ জন নিয়ে আমাকে আমাদের বাড়ির পেছনে কলা ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে এলোপাতাড়ি পেটায় ও কুপিয়ে ফেলে রেখে চলে যায়।

রবিন বলেছে, আমি অনেক আকুতি করার পরও তারা আমাকে ছাড়েনি। এ সময় আমার কাছ থেকে একটি মোবাইল নিয়ে যায়। পরে আমি কোনোরকমে বাড়িতে আসলে সাবাই মিলে আমাকে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করায়।

কারা এই ঘটনার সাথে জড়িত জানতে চাইলে সে জানায়, কোনাপাড়া এলাকার আব্দুল , মাসুম, রাকিবুল , শাহীন, বিদুন, ইউসুফ , মান্নান, খাইরুল, আরিফুল ও ওবায়দুলসহ ১০-১৫জন সেখানে ছিল।

রবিনের বড় ভাই রিপন মিয়া বলেন, খেলা নিয়ে এ ধরনের সহিংসতা কারোর কাছে কাম্য নয়। যারা আমার ভাইয়ের এ অবস্থা করেছে, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, এই ঘটনায় দুই পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় দুইটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। আসামী ধরার ব্যাপারে চেষ্টা চলছে।

ad