সুন্দরবনে শুকরের পালের হামলায় আহত ২

Morrelgonj (2)
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর ফরেস্ট স্টেশনের গুলিশাখালী এলাকায় শুকরের পালের হামলায় দুই কৃষক গুরুতর আহত হয়েছেন।

শনিবার (১২ মে) দিবাগত রাত ১টার দিকে আমুরবুনিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, ওই গ্রামের মো. মোতালেব শেখের ছেলে প্রতিবন্ধী মো. খোকন শেখ (২৫) ও তার ভাই মো. হাসান শেখ (২২)।

হামলার পর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. কামাল হোসেন মুফতি বলেন, শুকরের কামড়ে খোকনের শরীরের গভীর ক্ষত হয়েছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্যে তাদেরকে দ্রুত খুলনায় পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, মধ্যরাতে সুন্দরবনের শতাধিক শুকর খাবারের সন্ধানে বন থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে আমরবুনিয়া গ্রামে ঢুকে পড়ে। দলটি মোতালেব শেখের আলু খেতে হানা দেয়। এ সময় পাহারায় থাকা খোকন ও তার ভাই বাঁধা দিলে শুকরগুলো তাদের ওপর চড়াও হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আমরবুনিয়া টহল ফাঁড়ি এলাকাটি পুরোপুরি অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে। ভোলা নদী ভরাট হয়ে যাওয়ার পর প্রায় প্রতিদিনই বাঘ, শুকরসহ নানা ভয়ংকর বন্যপ্রাণী লোকালয়ে ঢুকে কৃষিক্ষেতসহ জান-মালের ক্ষতি করছে।

এ বিষয়ে গুলিশাখালী টহল ফাঁড়ির স্টেশন কর্মকর্তা (এসও) মো. মনিরুল হক বলেন, শুকরের হামলায় দু’জন আহত হবার ঘটনা উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদেরকে জানানো হয়েছে। তারা ব্যবস্থা নিবেন।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, গুলিশাখালী টহল ফাঁড়ি এলাকায় নিরাপত্তা বেষ্টনী স্থাপনের জন্য একটি প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে। এটি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে। ও

উল্লেখ্য, গত ২৩ জানুয়ারি একটি বাঘ এই একই ফাড়ি এলাকা থেকে লোকালয়ে ঢুকে হামলা চালিয়ে ৫ নিরীহ গ্রামবাসীকে আহত করে। আত্মরক্ষার্থে ওই দিন বাঘটিকে পিটিয়ে হত্যা করে বিক্ষিপ্ত গ্রামবাসীরা।

ad