বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের ভাঙচুর

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর করেছে ছাত্রদলের একটি পক্ষ। যারা বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও বয়সসীমা তুলে দিয়ে নিয়মিত কমিটির দাবিতে বেশ কিছুদিন ধরে আন্দোলন করছিল।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুর ১২টার দিকে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা কার্যালয়ে ঢুকতে গিয়ে বাধা পেয়ে এই ভাঙচুর চালায়। তারা কার্যালয়ের টেবিল ও সিসি ক্যামেরা ভাঙচুর করে। এতে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের সংগঠনটির বেশ কয়েকজন আহত হয়। পরে একদিনের সময় দিয়ে চলে যান ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী বেশ কয়েকজন জানান, সংগঠনের কাউন্সিলকে স্বাগত জানিয়ে দুপুর ১২টার দিকে ছাত্রদলের নিয়মিতরা কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিচ্ছিল। সোয়া ১২টার দিকে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও বয়সসীমা তুলে দিয়ে নিয়মিত কমিটির দাবিতে আন্দোলন করতে থাকা সংগঠনটির বেশ কিছু নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে নিয়মিতদের ধাওয়া দেয়। এতে তারা বিএনপি কার্যালয়ের ভেতরে ঢুকে পড়ে।

পরে বহিষ্কৃত নেতাকর্মীরাও সেখানে প্রবেশ করতে চায়। এ সময় কার্যালয়ের নিচতলার প্রবেশমুখে থাকা চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করে তারা। একইসঙ্গে প্রবেশ পথে থাকা সিসি ক্যামেরাও ভাঙচুর করে। এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের কয়েকজন আহত হয়।

এ সময় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী কার্যালয়ে প্রবেশের সময় সাংবাদিকদের বলেন, দলের একটা সিদ্ধান্ত আসছে, আশা করি সবাই এটা বিবেচনা করে কাজ করবে। আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন। আশা করি পরিস্থিতি উন্নয়নের জন্য আমাদের ছোট ভাইরা আমাদের যেকোনো ভাবে সহযোগিতা করবে।

এদিকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান ফটকে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের অবস্থানের ফলে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুসহ শতাধিক নেতাকর্মী অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন।

মন্তব্য লিখুন :