খালেদকে ১৪ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ

অস্ত্র ও মাদকসহ গ্রেপ্তার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ হোসেন ভূঁইয়াকে ১৪ দিনের রিমান্ডে চেয়েছে পুলিশ।

গুলশান থানায় দায়ের হওয়া মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য বৃহস্পতিবার আদালতে এ আবেদন করেন ওই থানার পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম। ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম মাহমুদার আদালতে এ রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অস্ত্র ও মাদকের পৃথক দুই মামলায় তার ৭ দিন করে ১৪ দিনের রিমান্ড চেয়ে আমরা আদালতে আবেদন করেছি।

জানা যায়, বুধবার রাতে গুলশানের বাসা থেকে তাকে আটকের পর খালেদকে র‍্যাব-৩ কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ক্যাসিনো থেকে উপার্জনের টাকা কার কার কাছে যেত, সে নিয়েও প্রশ্ন করা হয় তাকে। রাতে গ্রেপ্তারের সময় তার বাসা থেকে চারশ পিস ইয়াবা, লকার থেকে ১০ লাখ ৩৪ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া ডলারেরও বান্ডিল পাওয়া যায়। যা টাকায় ছয় লাখের মতো। তার কাছ থেকে মোট ৩টি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এরমধ্যে একটি পিস্তল ও অপর দুটি শর্টগান। যার একটি লাইসেন্সবিহীন, অপর দুটি লাইসেন্সের শর্তভঙ্গ করে রাখা হয়েছিল।

এদিন রাতে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া ক্যাসিনো থেকে ১৪২ জনকে আটক করে র‌্যাব। এসময় ক্যাসিনোতে জুয়া খেলার বিশটির মতো বোর্ড এবং নগদ ২৪ লাখ ২৯ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া প্রায় ৫০ বোতল বিদেশি মদ ও বিয়ার উদ্ধার করে র‌্যাব।

আটকের প্রায় ২০ ঘণ্টা পর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গুলশান থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। খালেদের বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্র ও মানি লন্ডারিং আইনে তিনটি মামলা করা হয়েছে। দুপুরে র‍্যাবের পক্ষ থেকে গুলশান থানায় মামলাগুলো করা হয়।

মন্তব্য লিখুন :