মুহিবুল্লাহ হত্যা: এক আসামির স্বীকারোক্তি

উখিয়ায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত রোহিঙ্গাদের শীর্ষস্থানীয় নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় গ্রেপ্তার মোহাম্মদ ইলিয়াছ নামে এক রোহিঙ্গা নাগরিক আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন ।

রবিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে কক্সবাজার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট  মো. হেলাল উদ্দিনের আদালতে জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়।
তবে জবানবন্দিতে তিনি কী বলেছেন, তা জানা যায়নি।

৩ অক্টোবর দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-৫–এ অভিযান চালিয়ে মো. ইলিয়াছকে (৩৫) গ্রেপ্তার করে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। এরপর তাকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে উখিয়া থানার পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ (প্রশাসন) মো. রফিকুল ইসলাম  বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেককে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। মুহিবুল্লাহ হত্যার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। হত্যাকারীদের শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের ধরতে ক্যাম্পে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

উল্লেখ্য গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে উখিয়ার লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা শিবিরের ডি ব্লকে অবস্থিত রোহিঙ্গাদের অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের  (এআরএসপিএইচ) কার্যালয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে রোহিঙ্গা নেতা  মুহিব উল্লাহ (৪৮) নিহত হন । তিনি ওই সংগঠনের চেয়ারম্যান ছিলেন। পরের দিন ৩০ সেপ্টেম্বর মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটির  তদন্ত করছেন  উখিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কার্ত্তিক চন্দ্র পাল।