করোনায় আরও ৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪৬৬

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৭৩৭ জনে।


একই সময়ে আক্রান্ত হিসেবে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ৪৬৬ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫ লাখ ৬৪ হাজার ৪৮৫ জন। এর আগের দিন (১৩ অক্টোবর) একদিনে ১৭ জনের মৃত্যু হয় এবং শনাক্ত হয় ৫১৮ জন।


বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনা পরিস্থিতি সংক্রান্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।


এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি-বেসরকারি ৮২৯টি ল্যাবরেটরিতে ২১ হাজার ৪১৫টি নমুনা সংগ্রহ ও ২১ হাজার ৫৬৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়ালো এক কোটি ৪২ হাজার ২৬৫টি।


নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২ দশমিক ১৬ শতাংশ এবং দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে আজ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার মোট হার ১৫ দশমিক ৫৮ শতাংশ।


২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া সাতজনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে পাঁচজন ও বেসরকারি হাসপাতালে দুইজন মারা গেছেন। মৃতদের বয়স বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, তাদের মধ্যে চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব চারজন ও সত্তর বছরে বেশি বয়সী দুইজন মারা যান।


বিভাওয়ারি হিসাবে মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে তিনজন, চট্টগ্রামে দুইজন এবং রাজশাহী ও খুলনা বিভাগে একজন করে মারা গেছেন।


বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাস থেকে সেরে উঠেছেন ৬৯৫ জন। এ নিয়ে দেশে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে উঠা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ২৬ হাজার ৩৬৮ জন। সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৫৬ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এরপর ধীরে ধীরে আক্রান্তের হার বাড়তে থাকে।