কক্সবাজারে আটক ব্যক্তিই ইকবাল হোসেন

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন ‘সন্দেহে’ এক ব্যক্তিকে কক্সবাজার থেকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজারের কলাতলীর সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে তাকে আটক করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রামের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন।

সহিংস পরিস্থিতি তৈরির উদ্দেশ্যে কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনায় অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন কক্সবাজারের পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এ বিষয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, রাত সোয়া ১০টার দিকে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ওই যুবককে আটক করা হয়।

কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, ওই ব্যক্তিকে কুমিল্লা নিয়ে আসা হচ্ছে। এখানে আনা হলে যাচাই-বাছাই শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগ ১৩ অক্টোবর কুমিল্লা মহানগরীর নানুয়া দিঘিরপাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা নিয়ে মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই চাঁদপুর, চট্টগ্রামসহ কয়েকটি জেলার উপাসনালয়ে হামলা হয়।

সবশেষ সিসিটিভির ফুটেজ দেখে পূজামণ্ডপে পবিত্র কুরআন রাখা ব্যক্তিকে শনাক্ত করে পুলিশ। ইকবাল হোসেন নামের সেই যুবককে হন্যে হয়ে খুঁজছে পুলিশ ও গোয়েন্দারা।

সেই ঘটনায় ১৬ মিনিটের একটি পূর্ণাঙ্গ সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন কীভাবে, কখন মসজিদে যান, বের হন, মণ্ডপের দিকে যান এবং মণ্ডপ থেকে গদা হাতে ফেরেন তা ফুটেজে অনেকটা স্পষ্ট। মসজিদের পাশের পুকুর পাড়ের একটি বাড়ির উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন, মসজিদ ও বাজার, ব্যাংক, সড়কের কয়েকটি স্পটের ফুটেজে ওই ব্যক্তিকে প্রথমে কোরআন হাতে এবং পরে গদা হাতে দেখা গেছে।