খানাখন্দে ভরা পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়ক

Jagoran- Khanakand, Patuakhali-Kuakata, Highway,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের আমতলীর শাখারিয়া থেকে বান্দ্রা পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটার সড়কে খানাখন্দে ভরে গেছে। এতে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। খানাখন্দের কারণে প্রতিদিন দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে যাত্রীবাহী বাস ও যানবাহন। এতে পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ঘরমুখো মানুষের নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরতে সমস্যায় পড়তে হবে।

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ সূত্রে জানাগেছে, এ সড়কে প্রতিদিন যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। সড়কের প্রতি দুই মিটার পরপর গর্তের দেখা মেলে। এ হিসেবে ওই সড়কে সহস্রাধিক গর্ত রয়েছে। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। প্রায়ই গর্তে পরে গাড়ী দুর্ঘটনার শিকার হয়।

সংস্কার না করায় সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এ মহাসড়কটি খানাখন্দে ভরে থাকায় পর্যটনগামী ও পরিবহন যথাস্থানে নির্দিষ্ট সময়ে গাড়ি পৌঁছাতে পারছে না।

সরেজনিনে ঘুরে দেখা গেছে, শাখারিয়া থেকে বান্দ্রা পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটার সড়কের শাখারিয়া, ব্রিকফিল্ড, কেওয়াবুনিয়া, মহিষকাটা, চুনাখালী, আমড়াগাছিয়া, ঘটখালী, তুলাতলা, একে স্কুল, বাধঘাট চৌরাস্তা, হাসপাতাল, ছুরিকাটা, মানিকঝুড়ি, খুড়িয়ার খেয়াঘাট, আকনবাড়ী, ফকিরবাড়ী, খলিয়ান ও বান্দ্রা এলাকায় খানাখন্দে ভরে গেছে। খানাখন্দের কারণে মহাসড়কে ঠিকমতো যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।

গাজীপুর বন্দরের সোহেল রানা জানান- মহাসড়কের যে বেহাল দশা হয়েছে, তাতে যানবাহন চলাচল করা খুবই কষ্টসাধ্য। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়কে চলাচল করতে হয়। অতিদ্রুত এ সড়কটি সংস্কার করা প্রয়োজন।

পথচারী মো. জাকির শিকদার বলেন, একটি মহাসড়কের রাস্তা এভাবে খানাখন্দে ভরা থাকার কথা নয়। এতে মানুষের চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। গত দুইমাস পূর্বে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এ সড়কের খানাখন্দের সংস্কার করে। কিন্তু কাজ নিম্নমানের হওয়ায় ওই খানাখন্দ উঠে গিয়ে পুনরায় খানাদন্দের সৃষ্টি হয়েছে।

মৃধা এন্টারপ্রাইজ বাস মালিক মো. হাসান মৃধা বলেন পুরা মহাসড়কটি খানাখন্দে ভরে আছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সংস্কার করছে না। সড়কটি দ্রুত সংস্কার করা না হলে যান চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়বে।

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকেীশলী মীর নিজাম উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, এ সড়কের দরপত্র আহবান করা হয়েছে। জলদি কাজ শুরু হবে। যানবাহন চলাচলের উপযোগী করার জন্য সড়কের সকল খানাখন্দ মেরামত করা হবে।

ad